গ্রাফিক ডিজাইনের সফটওয়্যার: নির্বাচিত ৩

গ্রাফিক ডিজাইনের সফটওয়্যার: নির্বাচিত ৩ - ক্যারিয়ারকী (CareerKi)

একটি ছবি হাজারো শব্দের চেয়ে বেশি কথা বলে। যোগাযোগের মাধ্যম হিসেবে ছবির ব্যবহার হয়ে আসছে প্রাচীনকাল থেকে। বিভিন্ন লেখনীকে পাঠকের কাছে আকর্ষণীয় করে তুলতে এর সাথে ছবির ব্যবহারের জুড়ি নেই। যারা ছবির মাধ্যমে এ যোগাযোগকে সম্ভবপর করে তোলেন, তারা হচ্ছেন গ্রাফিক্স ডিজাইনার। চলুন ঘুরে আসা যাক তাদের জগত থেকে এবং জেনে নেয়া যাক তাদের দ্বারা বহুল ব্যবহৃত ৩ টি সফটওয়্যার সম্পর্কে।

ফটোশপ (Adobe Photoshop)

ফটোশপ হচ্ছে অ্যাডোবি এর একটি গ্রাফিক্স এডিটিং সফটওয়্যার। এই সফটওয়্যারটি পেশাদার এবং অপেশাদার উভয় গ্রাহকই ব্যবহার করে থাকেন।  এটি বিভিন্ন অপারেটিং সিস্টেমে ব্যবহারযোগ্য এবং বিভিন্ন ভাষাতে পাওয়া যায়।।

সফটওয়্যারটি  ছবি সম্পাদনা করার ক্ষেত্রে রেস্টার ইমেজ (পিক্সেল ভিত্তিক) এবং ভেক্টর গ্রাফিক্সের জন্য অনেক সুযোগ দিয়ে থাকে। এটি একটি স্তরভিত্তিক এডিটিং সিস্টেম- যা ছবি তৈরি এবং ছবির উপর একাধিক আস্তরণ তৈরি করে তার পরিবর্তন করতে সক্ষম। অন্তর্নিহিত রং পরিবর্তন করে আস্তরণগুলো মাস্ক বা ফিল্টার হিসেবেও ব্যবহার করা যায়। ফটোশপ ক্রিয়েটিভ ক্লাউড নামের একটি ফিচার যেকোনো কম্পিউটার হতে ব্যবহারকারীকে তার কন্টেন্টে কাজ করার সুযোগ তৈরি করে দেয়। এটি একটি পেইড সফটওয়্যার। অর্থাৎ এটি ব্যবহার করতে হলে পরিশোধ করতে হবে নির্দিষ্ট সাবস্ক্রিপশন ফি।

ফটোগ্রাফারস, গ্রাফিক্স ডিজাইনারস, বিজ্ঞাপন নির্মাতা এবং আরও অনেকে ফটোশপ সফটওয়্যারটি ব্যবহার করে থাকেন।

ইলাস্ট্রেটর (Adobe Illustrator)

লোগো, স্কেচ, টাইপোগ্রাফি, আইকনস কিংবা ভিডিও বা মোবাইলের জন্য যাবতীয় জটিল চিত্র তৈরিতে অনবদ্য একটি টুলের নাম হচ্ছে ইলাস্ট্রেটর। এর সাহায্যে পিক্সেল-পারফেক্ট আকৃতি ব্যবহার করে তৈরি করা যায় চমৎকার সব চিত্রকর্ম।

ফটোশপের মতো ইলাস্ট্রেটরও অ্যাডোবি এর সফটওয়্যার হওয়ায় এতে রয়েছে ক্রিয়েটিভ ক্লাউড নামের ফিচারটি। এই সফটওয়্যারটির প্লাগ- ইনস ব্যবহার করে একটি ফাঁকা ওয়েব পেইজকে করে তোলা যায় অত্যন্ত আকর্ষণীয়। সফটওয়্যারটিকে ব্যবহার করা যায় বিভিন্ন অপারেটিং সিস্টেমে। ফটোশপের মতো এটিও একটি পেইড সফটওয়্যার। নির্দিষ্ট সাবস্ক্রিপশন ফি প্রদান করে ব্যবহার করা যাবে চমৎকার এই সফটওয়্যারটি।

গ্রাফিক্স ডিজাইনার, চারুশিল্পীগণ তাদের পেশাগত জীবনে ইলাস্ট্রেটর সফটওয়্যারটি ব্যবহার করে থাকেন।

অটোক্যাড (AutoCAD)

অটোক্যাড একটি কম্পিউটার এইডেড ডিজাইন (সিএডি) প্রোগ্রাম যা দ্বিমাত্রিক এবং ত্রিমাত্রিক নকশা এবং খসড়া তৈরিতে ব্যবহৃত হয়ে থাকে। সহজ ভাষায়, অটোক্যাড হচ্ছে একটি বাণিজ্যিক সফটওয়্যার অ্যাপ্লিকেশন, যা একটি কম্পিউটারের সাহায্যে দ্বিমাত্রিক এবং ত্রিমাত্রিক মডেল প্রস্তুত করে। । অটোডেস্ক ইনকর্পোরেশনের এই সফটওয়্যারটি ব্যক্তিগত কম্পিউটারে ব্যবহারযোগ্য প্রথম সিএডি সফটওয়্যারগুলোর একটি।

স্থাপত্যকলা, নির্মাণ এবং উৎপাদন কাজে প্রয়োজনীয় দ্বিমাত্রিক এবং ত্রিমাত্রিক ব্লুপ্রিন্ট তৈরিতে অটোক্যাড হচ্ছে সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত সফটওয়্যার। অটোক্যাড তার ব্যবহারকারীদের বিল্ট ইন ডিজাইন লেআউট সহ একটি স্বতন্ত্র ইন্টারফেস প্রদান করে। এই লেআউটগুলিতে রয়েছে অসংখ্য টেমপ্লেট যা বিশেষভাবে স্থাপত্য পরিকল্পনা এবং স্থাপনা নির্মাণের জন্য ডিজাইন করা হয়েছে। যেসব প্রকল্পে নির্মাণকাজের জন্য পরিকল্পিত নকশার প্রয়োজন রয়েছে, এমনসব ক্ষেত্রেও  অটোক্যাডের পর্যাপ্ত জ্ঞান থাকলে যে কেউ কাজ করতে পারেন ।

মূলত প্রকৌশলীরা অটোক্যাড সফটওয়্যারটি পেশাগত কাজে ব্যবহার করে থাকেন। যারা অটোক্যাড ব্যবহার করেন, তাদের ড্রাফটারস বলে ডাকা হয়।

Leave a Reply

আপনার নাম ও ইমেইল ঠিকানা দেয়া আবশ্যক। তবে মতামতের সাথে ইমেইল দেখানো হবে না।