অটোমোবাইল ইঞ্জিনিয়ার

অটোমোবাইল ইঞ্জিনিয়ার: ক্যারিয়ার প্রোফাইল - ক্যারিয়ারকী (CareerKi)

একজন অটোমোবাইল ইঞ্জিনিয়ার গাড়ির ডিজাইন, যন্ত্রাংশ নির্মাণ, রক্ষণাবেক্ষণ ও মেরামতের কাজ করে থাকেন। আমাদের দেশে এ খাতে কাজ করার সুযোগ তুলনামূলকভাবে সীমিত।

এক নজরে একজন অটোমোবাইল ইঞ্জিনিয়ার

সাধারণ পদবী: অটোমোবাইল ইঞ্জিনিয়ার, অটোমোটিভ ইঞ্জিনিয়ার
বিভাগ: ইঞ্জিনিয়ারিং
প্রতিষ্ঠানের ধরন: প্রাইভেট ফার্ম/কোম্পানি
ক্যারিয়ারের ধরন: ফুল-টাইম
লেভেল: এন্ট্রি, মিড
এন্ট্রি লেভেলে সম্ভাব্য অভিজ্ঞতা সীমা: ০ – ২ বছর
এন্ট্রি লেভেলে সম্ভাব্য গড় বেতন: ৳৩০,০০০ – কাজ, অভিজ্ঞতা ও প্রতিষ্ঠানসাপেক্ষ
এন্ট্রি লেভেলে সম্ভাব্য বয়স: ২২ – ৩০ বছর
মূল স্কিল: গাড়ির ইঞ্জিন সম্পর্কিত জ্ঞান, যন্ত্রপাতি সম্পর্কিত জ্ঞান
বিশেষ স্কিল: গাণিতিক দক্ষতা, প্রজেক্ট ব্যবস্থাপনা, দলগত কাজে দক্ষতা

একজন অটোমোবাইল ইঞ্জিনিয়ার কোথায় কাজ করেন?

  • গাড়ি আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান
  • গাড়ি উৎপাদনকারক প্রতিষ্ঠান
  • কার সার্ভিস সেন্টার
  • পরিবহন প্রতিষ্ঠান

একজন অটোমোবাইল ইঞ্জিনিয়ারের কাজ কী?

  • গাড়ি ও গাড়ির যন্ত্রাংশের ডিজাইন তৈরি করা
  • গাড়ির যন্ত্রাংশ তৈরির জন্য প্রয়োজনীয় উপকরণ ও কাঁচামাল নির্ধারণ করা
  • গাড়ি ও গাড়ির যন্ত্রাংশ নির্মাণের সম্ভাব্য খরচের হিসাব তৈরি করা
  • গাড়ি ও গাড়ির যন্ত্রাংশ নির্মাণের ক্ষেত্রে কী ধরনের সমস্যা হতে পারে ও তার সমাধান কীভাবে করা যায়, তার জন্য পরীক্ষা-নিরীক্ষার ব্যবস্থা
  • গাড়ি ও গাড়ির যন্ত্রাংশ নির্মাণের জন্য দরকারি যন্ত্রপাতি স্থাপন করা ও সেগুলো নিয়মিত পরীক্ষা করা
  • গাড়ি ও গাড়ির যন্ত্রাংশ নির্মাণের যাবতীয় কারিগরি কাজ তদারকি করা
  • নির্মিত গাড়ি ও গাড়ির যন্ত্রাংশে সমস্যা আছে কি না, তা পরীক্ষা করা

গাড়ির সেলস ও সার্ভিসিং বিভাগেও বহু অটোমোবাইল ইঞ্জিনিয়ার কাজ করে থাকেন। এক্ষেত্রে মূলত কাস্টমারের প্রয়োজন অনুযায়ী পরামর্শ ও কারিগরি সহায়তা দেন তারা।

একজন অটোমোবাইল ইঞ্জিনিয়ারের কী ধরনের যোগ্যতা থাকতে হয়?

শিক্ষাগত যোগ্যতাঃ চার বছর মেয়াদি ডিপ্লোমা ইন অটোমোবাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্স সম্পন্ন করতে হবে। তবে মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং থেকে ব্যাচেলর ডিগ্রি সম্পন্ন করার পর বিদেশে উচ্চতর শিক্ষা নেয়া সম্ভব।

বয়সঃ প্রতিষ্ঠানসাপেক্ষে বয়সের সীমা নির্ধারিত হয়। সাধারণত আপনার বয়স কমপক্ষে ২৫ বছর হতে হবে।

অভিজ্ঞতাঃ এ পেশায় অভিজ্ঞদের প্রাধান্য রয়েছে। সাধারণত ১ – ২ বছরের অভিজ্ঞতা কাজে আসে।

একজন অটোমোবাইল ইঞ্জিনিয়ারের কী ধরনের দক্ষতা ও জ্ঞান থাকতে হয়?

  • গাড়ির ইঞ্জিন ও অন্যান্য কারিগরি দিক সম্পর্কিত জ্ঞান
  • গাড়ির ডিজাইন সম্পর্কিত জ্ঞান
  • গাড়ির যন্ত্রাংশ নির্মাণ ও মেরামতের যন্ত্রপাতি ব্যবহারের দক্ষতা
  • গাণিতিক দক্ষতা

নন-টেকনিক্যাল জ্ঞানের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো –

  • সৃজনশীল উপায়ে ও যৌক্তিকভাবে সমস্যা সমাধানের দক্ষতা
  • বিশ্লেষণী ক্ষমতা, যা খুঁটিনাটি বিষয়গুলো পর্যবেক্ষণে সাহায্য করতে পারে
  • অন্যদের সাথে কাজ করার মানসিকতা থাকা
  • বিভিন্ন ধরনের কাজ একসাথে সামলানোর দক্ষতা
  • বড় কারখানায় ভারী যন্ত্রপাতি নিয়ে কাজ করার মানসিকতা থাকা

সেলস বিভাগে কাজ করতে হলে কোম্পানির সেলস পলিসি নিয়ে ধারণা থাকা আবশ্যক। এছাড়া সেলসে ভালো হতে হবে আপনাকে।

কোথায় পড়বেন অটোমোবাইল ইঞ্জিনিয়ারিং?

ডিপ্লোমা কোর্সের ক্ষেত্রে আমাদের দেশে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান রয়েছে। যেমন:

  • ঢাকা পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট
  • বাংলাদেশে-সুইডেন পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট
  • বাংলাদেশ পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট
  • শ্যামলী আইডিয়াল পলিটেকনিক ইনস্টিটিউ
  • মটস ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি
  • মিরপুর পলিটেকনিক্যাল ইনস্টিটিউট
  • চিটাগাং টেকনিক্যাল কলেজ
  • সাকিনা আজহার টেকনিক্যাল কলেজ
  • বাংলাদেশ-কোরিয়া টেকনিক্যাল ট্রেনিং সেন্টার (বিকেটিটিসি)

অন্যদিকে বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের উপর বিএসসি ডিগ্রি নেবার ব্যবস্থা আছে।

একজন অটোমোবাইল ইঞ্জিনিয়ারের মাসিক আয় কেমন?

সদ্য পাশ করা একজন অটোমোবাইল ইঞ্জিনিয়ার প্রতিষ্ঠানভেদে ৳১৫,০০০ – ৳২৫,০০০ পর্যন্ত বেতন পেতে পারেন।

হাতে-কলমে ৩ -৪ বছর কাজ শেখার পর একজন অটোমোবাইল ইঞ্জিনিয়ারের বেতন সাধারণত ৫০ থেকে ৮০ হাজার টাকা বা তারও বেশি হতে পারে।

একজন অটোমোবাইল ইঞ্জিনিয়ারের ক্যারিয়ার কেমন হতে পারে?

অভিজ্ঞতা ও কাজ জানার উপর ক্যারিয়ার নির্ভর করে।

এন্ট্রি লেভেলে সাধারণত অ্যাসিস্ট্যান্ট ইঞ্জিনিয়ার হিসাবে কাজ শুরু করতে পারবেন। ক্যারিয়ারের সর্বোচ্চ পর্যায়ে অটোমোবাইল ইঞ্জিনিয়ারিং বা সার্ভিসিং বিভাগের প্রধান হিসাবে নিয়োগ পাওয়া সম্ভব।

আপনার ভালো কাজ জানলে দেশের গণ্ডি পেরিয়ে বিদেশেও ভাল আয়ের কাজ পাওয়া সম্ভব। এছাড়া অনেকে নিজেদের সার্ভিস সেন্টারের মাধ্যমে আয়ের উৎস তৈরি করে থাকেন।

কেন নেবেন ক্যারিয়ার টেস্ট?

  • সরাসরি ইন্টারভিউর কল পেতে
  • সরাসরি চাকরির পরীক্ষা দিতে
  • চাকরি পরীক্ষার প্রস্তুতি নিতে
  • চাকরির জন্য দরকারি স্কিল অর্জন করতে
ক্যারিয়ার টেস্টে যান

12 thoughts on “অটোমোবাইল ইঞ্জিনিয়ার

  1. I am a student of Diploma in Automobile engineering on 4th semester at Dhaka Polytechnic Institute.
    I love Automobile very much.
    Hope B.sc in Automobile Engineering will be launched shortly in our country.
    I think those who have studying in Automobile engineering have a bright future.

    1. আমাদেরও তাই প্রত্যাশা। অসংখ্য শুভকামনা আপনার ও এ সেক্টরের সকলের জন্য। ক্যারিয়ারকীর সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ!

  2. Automobile e akdom top hote chaile amai kon কোর্স টা কমপ্লিট করতে হবে ,আমি নতুন জইন করবো ,আমি ১২ পাস (science)

    1. আপনি কাছাকাছি কোন পলিটেকনিক/ডিপ্লোমা ইন্সটিটিউট থেকে অটোমোবাইল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের উপর ডিগ্রি অর্জন করলে ভালো হয়।

        1. আপনি পড়াশোনার কোন পর্যায়ে আছেন, তা আমাদের জানা নেই। আপনি অটোমোবাইল ইঞ্জিনিয়ারিং নিয়ে ডিপ্লোমা করতে পারেন।

  3. hlw aslamualakum i am riyashad imran, i belong to Chittagong i am an automobile engineer.so i like to buildup my career with Automobiles engineerin. i looking for a job and i have some years experience about automobiles. it will be helpful to find out job or any suggests thank you

    1. হ্যাঁ। আপনি পরিচিত কোন ডিপ্লোমা বা পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটে গিয়ে এ ব্যাপারে সরাসরি কথা বলতে পারেন।

    1. বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত সরাসরি অটোমোবাইল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে পড়ার সুযোগ নেই। সাধারণত মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে বিএসসি পাশ করে অনেকে উচ্চতর ডিগ্রি নেন বাইরে গিয়ে।

Leave a Reply

আপনার নাম ও ইমেইল ঠিকানা দেয়া আবশ্যক। তবে মতামতের সাথে ইমেইল দেখানো হবে না।