অনলাইনে টি-শার্ট ব্যবসা: যা জানা থাকা দরকার

ক্যারিয়ার কন্টেন্ট - ক্যারিয়ারকী (CareerKi)

বর্তমানে অনলাইনে টি-শার্ট ব্যবসা বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। মূলত অল্প পুঁজি দিয়ে শুরু করা যায় বলে তরুণ উদ্যোক্তাদের অনেকে এ ব্যবসার দিকে আগ্রহ দেখাচ্ছেন। তবে এ খাতে আসতে হলে কিছু বিষয় জেনে রাখা প্রয়োজন। সে বিষয়গুলো নিয়েই এবারের লেখা।

প্রোডাকশন

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম অথবা ইকমার্সের মাধ্যমে যারা টি শার্ট বিক্রি করছেন, তাদের অধিকাংশের পুঁজি কম। স্বাভাবিকভাবে প্রোডাক্টের সংখ্যা কম হয়। যার কারণে উৎপাদনের খরচ বেড়ে যায় ও পণ্যের গুণগত মান বজায় রাখা কঠিন হয়ে পরে। এছাড়া টি-শার্ট বানানোর সময় সার্বক্ষণিক তত্ত্বাবধান জরুরি। ফলে আপনাকে প্রোডাকশনের জন্য বহু সময় ব্যয় করতে হবে।

টি-শার্ট বিক্রি

অতিরিক্ত উৎপাদন খরচ আর ব্যয়বহুল প্রমোশনের কারণে অনেক সময় পণ্য বিক্রির পরেও লাভের পরিমাণ খুব কম থাকে। এমনকি ক্ষতির সম্মুখীনও হতে পারেন। এ কারণে এ খাতে দীর্ঘ মেয়াদে টিকে থাকা কঠিন হয়ে পড়ে। এছাড়া ডেলিভারি দিতে দেরি হলে বহু ক্রেতা অর্ডার বাতিল করেন। আবার ট্রেন্ডি টি-শার্ট বিক্রির ক্ষেত্রে নিখুঁত ডিজাইন না হলে ক্রেতারা আগ্রহ দেখান না।

প্রতিযোগিতা

বর্তমানে এ খাতে প্রতিযোগিতা অন্য যেকোন সময়ের চেয়ে বেশি। অন্যদিকে ডিজাইন চুরির সম্ভাবনাও আছে। টি-শার্টের মান আর দামের তারতম্যের উপরও আপনার বিক্রির পরিমাণ নির্ভর করবে।

পুঁজি

এ খাতের অন্যতম প্রধান সমস্যা পুঁজি। ১০ থেকে ২০ হাজার টাকা নিয়ে অনেকে অনলাইনে টি-শার্ট ব্যবসা শুরু করে দেন। কিন্তু সমস্যা বাঁধে যখন পুঁজি আটকে যায়। তাই ব্যাকআপ ফান্ড থাকা জরুরি। আবার কম পুঁজির কারণে উৎপাদনের পরিমাণ কম হলে পণ্যের দামও বেড়ে যায়।

ট্রেড লাইসেন্স

আইনসম্মতভাবে অনলাইনে টি-শার্ট ব্যবসা করতে হলে ট্রেড লাইসেন্স থাকতে হয়। তবে এক্ষেত্রে ইকমার্সের আলাদা কোন ক্যাটাগরি নেই। অন্য ক্যাটাগরিতে ট্রেড লাইসেন্স করতে হয়। এর জন্য ৫-১০ হাজার টাকা খরচ হবে।

যুগের চাহিদা আর ফ্যাশনের হাল

এ খাতে টিকে থাকতে হলে যুগের সাথে তাল মেলানো ছাড়া উপায় নেই। টি-শার্ট ক্রেতাদের একটা বড় অংশ হচ্ছে তরুণ তরুণীরা। গৎবাঁধা ডিজাইনে আগ্রহ কম তাদের। তারা চায় পরনের টি-শার্ট তাদের পরিচয়কে ফুটিয়ে তুলুক। তাই ডিজাইন নির্বাচনে এ বিষয়টি মাথায় রাখতে হবে। এছাড়া ডিজাইন আর পণ্যের চাহিদা নির্ভর করে ক্রেতার ধরনের উপর। তাই নির্দিষ্ট কোন জনগোষ্ঠীকে কেন্দ্র করে টি-শার্ট ডিজাইন ও প্রচারণা চালানো জরুরি।

অনলাইনে টি-শার্ট ব্যবসা করার সময় প্রথাগত প্রায় সব ব্যবসায়িক সমস্যা বিবেচনায় আনতে হবে আপনাকে। পাশাপাশি তরুণদের ফ্যাশন চিন্তা আর চাহিদার উপর গুরুত্ব দিতে হবে। এ চ্যালেঞ্জগুলোর সাথে সামঞ্জস্য রেখে সিদ্ধান্ত নিলে এ খাতে সফল হবার সম্ভাবনা বেড়ে যাবে অনেক।

Leave a Reply

আপনার নাম ও ইমেইল ঠিকানা দেয়া আবশ্যক। তবে মতামতের সাথে ইমেইল দেখানো হবে না।