অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ অ্যাসিস্ট্যান্ট

ক্যারিয়ার কন্টেন্ট - ক্যারিয়ারকী (CareerKi)

একজন অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ অ্যাসিস্ট্যান্ট একটি প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন প্রশাসনিক কাজে সাহায্য করে থাকেন।

এক নজরে একজন অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ অ্যাসিস্ট্যান্ট

সাধারণ পদবী: অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ অ্যাসিস্ট্যান্ট, অফিস সাপোর্ট অ্যাসিস্ট্যান্ট
বিভাগ: অফিস সাপোর্ট
প্রতিষ্ঠানের ধরন: সরকারি, বেসরকারি, প্রাইভেট ফার্ম/কোম্পানি
ক্যারিয়ারের ধরন: ফুল-টাইম, পার্ট-টাইম
লেভেল: এন্ট্রি
এন্ট্রি লেভেলে সম্ভাব্য অভিজ্ঞতা সীমা: ০ – ২ বছর
এন্ট্রি লেভেলে সম্ভাব্য গড় বেতন: ৳১৫,০০০ – ৳২৫,০০০
এন্ট্রি লেভেলে সম্ভাব্য বয়স: প্রতিষ্ঠানসাপেক্ষ
মূল স্কিল: যোগাযোগের দক্ষতা, ধৈর্য, মানসিক চাপ সামলানোর ক্ষমতা
বিশেষ স্কিল: সহযোগিতার সম্পর্ক তৈরি করতে পারা

একজন অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ অ্যাসিস্ট্যান্ট কোথায় কাজ করেন?

সরকারি, বেসরকারি ও প্রাইভেট ফার্ম/কোম্পানিতে অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ অ্যাসিস্ট্যান্ট হিসাবে কাজ করার সুযোগ রয়েছে। ব্যক্তিগত পর্যায়েও এ পদে নিয়োগ দেয়া হয়। সেক্ষেত্রে আপনি একজন পার্সোনাল অ্যাসিস্ট্যান্ট হিসাবে বিবেচিত হবেন।

একজন অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ অ্যাসিস্ট্যান্ট কী ধরনের কাজ করেন?

  • প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন প্রশাসনিক কাজে সাহায্য করা, যেমনঃ ফাইলিং সিস্টেম গুছিয়ে রাখা;
  • ফোন কল রিসিভ করা ও প্রয়োজনে অ্যাপয়েনমেন্টের ব্যবস্থা করা;
  • প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাদের গুরুত্বপূর্ণ কাজ ও অ্যাপয়েনমেন্টের কথা মনে করিয়ে দেয়া;
  • মিটিংয়ের সময় নোট নেয়া ও নোটগুলো ডকুমেন্টে তোলা;
  • ব্যবসায়িক ভ্রমণের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া, যেমনঃ টিকেট বুকিং করা;
  • বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও মানুষের সাথে আনুষ্ঠানিক যোগাযোগ রাখা;
  • প্রয়োজনীয় রিপোর্ট তৈরির কাজ করা।

একজন অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ অ্যাসিস্ট্যান্টের কী ধরনের যোগ্যতা থাকতে হয়?

শিক্ষাগত যোগ্যতাঃ সাধারণত ন্যূনতম ব্যাচেলর ডিগ্রি দরকার হয়। অবশ্য কিছু ক্ষেত্রে এইচএসসি পাশ হলেই আবেদন করা যায়।

অভিজ্ঞতাঃ সাধারণত ১ – ২ বছরের অভিজ্ঞতা থাকা প্রয়োজন। কিছু ক্ষেত্রে অভিজ্ঞতা ছাড়াও নিয়োগ দেয়া হয়।

বয়সঃ সাধারণত ২২ – ৪০ বছর। তবে বিষয়টি প্রতিষ্ঠানসাপেক্ষ।

বিশেষ শর্তঃ অনেক সময় নিয়োগের ক্ষেত্রে নারী অথবা পুরুষের কথা আলাদাভাবে উল্লেখ করা থাকতে পারে।

একজন অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ অ্যাসিস্ট্যান্টের কী ধরনের দক্ষতা ও জ্ঞান থাকতে হয়?

  • প্রশাসনিক কাজ গুছিয়ে রাখার জ্ঞান;
  • কম্পিউটার ও ইন্টারনেট ব্যবহারে দক্ষতা;
  • দক্ষভাবে বাংলা ও ইংরেজিতে যোগাযোগ করার ক্ষমতা;
  • ধৈর্যের সাথে কাজ করার মানসিকতা;
  • মানসিক চাপ সামলানোর ক্ষমতা, যা নেতিবাচক পরিস্থিতিতে কাজে দেবে।

একজন অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ অ্যাসিস্ট্যান্টের মাসিক আয় কেমন?

এ পেশায় মাসিক আয় সাধারণত কাজ, অভিজ্ঞতা ও প্রতিষ্ঠানসাপেক্ষ। তবে গড় হিসাবে যে কোন প্রতিষ্ঠানে একজন অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ অ্যাসিস্ট্যান্টকে ৳১৫,০০০ – ৳২৫,০০০ মাসিক বেতন দেওয়া হয়।

একজন অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ অ্যাসিস্ট্যান্টের ক্যারিয়ার কেমন হতে পারে?

এ পেশায় নির্দিষ্ট কোন ধাপ নেই। তবে ডকুমেন্টেশনের দক্ষতা ও ব্যবসায়িক ধারণা থাকলে ভালো বেতনসহ বিভিন্ন সুবিধা পাওয়া সম্ভব।

Loading

3 thoughts on “অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ অ্যাসিস্ট্যান্ট

  1. I am Md. Rajaul Karim, I completed post-graduation from Industrial Relations & Labour Studies at Sociology from University of Dhaka

Leave a Reply

আপনার নাম ও ইমেইল ঠিকানা দেয়া আবশ্যক। তবে মতামতের সাথে ইমেইল দেখানো হবে না।