ইন্ডাস্ট্রিয়াল অ্যান্ড অর্গানাইজেশনাল সাইকোলজিস্ট

ক্যারিয়ার কন্টেন্ট - ক্যারিয়ারকী (CareerKi)

সাধারণত কমবেশি সব প্রতিষ্ঠানেই ইন্ডাস্ট্রিয়াল অ্যান্ড অরগানাইজেশনাল সাইকোলজিস্টদের নিয়োগ দেওয়া হয় কর্মীদের মানসিক স্বাস্থ্য দেখভাল করার জন্য। মানসিকভাবে কর্মীরা সন্তুষ্ট ও পরিতৃপ্ত কিনা সে ব্যাপারে খেয়াল রাখার জন্যই নিয়োগ দেওয়া হয় একজন ইন্ডাস্ট্রিয়াল অ্যান্ড অরগানাইজেশনাল সাইকোলজিস্টকে। এক্ষেত্রে একটি প্রতিষ্ঠানের আবহ ঠিক রাখার ক্ষেত্রে একজন ইন্ডাস্ট্রিয়াল সাইকোলজিস্ট গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন।

একজন ইন্ডাস্ট্রিয়াল সাইকোলজিস্ট কোথায় কাজ করেন?

বাংলাদেশে সাধারণত সব ধরনের প্রতিষ্ঠানেই ইন্ডাস্ট্রিয়াল সাইকোলজিস্ট নিয়োগ দেওয়া হয়ে থাকে কর্মীদের মানসিক স্বতঃস্ফূর্ততা ও কর্মক্ষেত্রের আবহ স্বাভাবিক রাখার কাজ নিশ্চিত করতে। এক্ষেত্রে কর্পোরেট ও বহুজাতিক প্রতিষ্ঠানগুলোতেই সাধারণত ইন্ডাস্ট্রিয়াল সাইকোলজিস্ট নিয়োগ দেওয়া হয়ে থাকে। বাংলাদেশে সরকারি কর্মক্ষেত্রে এখনও এই পদের সৃষ্টি হয়নি। তবে বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলো কর্মীদের সমৃদ্ধি ও কল্যাণের কথা বিবেচনা করে সাধারণত ইন্ডাস্ট্রিয়াল সাইকোলজিস্ট বর্তমানে নিয়োগ দিয়ে থাকেন।

একজন ইন্ডাস্ট্রিয়াল সাইকোলজিস্ট কী ধরনের কাজ করেন?

একজন ইন্ডাস্ট্রিয়াল সাইকোলজিস্টের মূল কাজ থাকে গবেষণা করা। লেবার ইউনিয়ন, হেলথ কেয়ার সার্ভিস এবং অন্যান্য সুযোগ-সুবিধার মাধ্যমে কর্মীদের কাজ কীভাবে সহজ করা যায় তা বের করার দায়িত্ব আপনার উপর অর্পিত থাকবে এক্ষেত্রে।

২। কর্মীদের সাথে নিয়মিত এবং বন্ধুত্বপূর্ণ যোগাযোগ ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে অফিসের সার্ভিস তাদের মনঃপুত আছে কিনা তা জানতে হবে।

৩। কর্মক্ষেত্রের আবহ ও সুযোগ-সুবিধা নিয়ে কর্মীদের সন্তুষ্টি আছে কিনা এবং কী ধরনের নতুন সার্ভিস দরকার সে ব্যাপারে তথ্য আহরণ করা।

৪। নিজ কর্মক্ষেত্র ও অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের আবহের মধ্যে পার্থক্য বের করা এবং কী ধরনের নতুন সুযোগ-সুবিধা চালু করা প্রয়োজন সে ব্যাপারে খোঁজখবর রাখা ও গবেষণা করা।

৫। অফিসের কোন কর্মী মানসিকভাবে বিপর্যস্ত থাকলে কিংবা কোনরকম জটিল সমস্যার মধ্যে জীবন অতিবাহিত করলে ব্যক্তিগত আলোচনার মাধ্যমে সেসব সমস্যার সমাধান তুলে ধরা এবং মানসিক বিপর্যয় কাটিয়ে উঠতে সাহায্য করা।  

একজন ইন্ডাস্ট্রিয়াল সাইকোলজিস্টের কী ধরনের যোগ্যতা থাকতে হয়?

বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে ইন্ডাস্ট্রিয়াল সাইকোলজিস্ট পদটি এখনও তেমন প্রচলিত নয়। কিছু কিছু প্রতিষ্ঠানে থাকলেও সব ধরনের প্রতিষ্ঠানে এ পদটি এখনও চালু না হলেও আসছে দিনে হয়তো সকল প্রতিষ্ঠানই কর্মীদের কল্যাণের কথা বিবেচনা করে ইন্ডাস্ট্রিয়াল সাইকোলজিস্ট নিয়োগ দিবে। ইন্ডাস্ট্রিয়াল সাইকোলজিস্ট হিসেবে কাজ করতে চাইলে সাধারণত মনোবিজ্ঞান বিষয়ে ব্যাচেলর ডিগ্রি থাকতে হয়। সাইকোলজি বা মনোবিজ্ঞান বিষয়ে মাস্টার্স ডিগ্রিপ্রাপ্ত হলে প্রার্থীরা সাধারণত প্রাধান্য পেয়ে থাকেন। [এই পদটি বাংলাদেশের অধিকাংশ প্রতিষ্ঠানেই না থাকায় যথার্থ তথ্য সংগ্রহ করা সম্ভব হয়নি]

একজন ইন্ডাস্ট্রিয়াল সাইকোলজিস্টের কী ধরনের দক্ষতা ও জ্ঞান থাকতে হয়?

১। কর্মীদের মানসিক বিপর্যয় এবং দুরবস্থার ব্যাপারগুলো মানুষের সংবেদনশীল বিষয় হওয়ায় বেশ যত্নের সাথে এর দেখভাল করতে হবে। আপনি সমাধান প্রদানের ক্ষেত্রে একজন কর্মীর সাথে যখন ব্যক্তিগত আলোচনা করছেন তখন আপনাকে অবশ্যই লক্ষ্য রাখতে হবে আপনি যেন কোনভাবে তার মনে কোনভাবে আঘাত না করে বসেন।

২। মনোবিজ্ঞানের জ্ঞান ও দক্ষতা যথার্থভাবে কাজে লাগানো বেশ জরুরি।

৩। কী ধরনের সুযোগ-সুবিধা নতুনভাবে প্রচলিত করলে কর্মীদের সুবিধা সে ব্যাপারে জানার পাশাপাশি এর অসুবিধা বা খারাপ প্রভাবগুলো কেমন হতে পারে সে ব্যাপারেও জানতে হবে।

৪। কর্মক্ষেত্রের আবহ ভালো রাখার জন্য কী কী কৌশল অবলম্বন করা যেতে পারে সে ব্যাপারে নিয়মিত খোঁজখবর রাখতে হবে।

একজন ইন্ডাস্ট্রিয়াল সাইকোলজিস্টের মাসিক আয় কেমন?

কাজ ও প্রতিষ্ঠানসাপেক্ষ। 

 

 

        

 

Loading

Leave a Reply

আপনার নাম ও ইমেইল ঠিকানা দেয়া আবশ্যক। তবে মতামতের সাথে ইমেইল দেখানো হবে না।