কার্টুনিস্ট

কার্টুনিস্ট: ক্যারিয়ার প্রোফাইল - ক্যারিয়ারকী (CareerKi)

একজন কার্টুনিস্ট বা চিত্রশিল্পী বিভিন্ন মাধ্যমে চিত্রকর্ম ফুটিয়ে তোলেন। বর্তমানে প্রযুক্তির উৎকর্ষের যুগেও এই পেশার চাহিদা বহাল আছে। বইয়ের প্রচ্ছদ থেকে শুরু করে বিভিন্ন ডিজিটাল ফর্মে এই পেশার প্রসার ঘটছে। সৃজনশীল মনন ও ছবি আঁকার আগ্রহ থাকলে এই ভিন্নমাত্রার পেশায় যুক্ত হয়ে গড়তে পারেন আকর্ষণীয় ক্যারিয়ার।

এক নজরে একজন কার্টুনিস্ট

সাধারণ পদবী: কার্টুনিস্ট
বিভাগ: চারু ও শিল্পকলা
প্রতিষ্ঠানের ধরন: সরকারি, বেসরকারি প্রতিষ্ঠান, ফ্রিল্যান্সিং
ক্যারিয়ারের ধরন: পার্ট-টাইম, ফুল টাইম
লেভেল: এন্ট্রি, মিড
অভিজ্ঞতা সীমা: কাজ ও প্রতিষ্ঠানসাপেক্ষ
সম্ভাব্য বেতনসীমা: কাজ, প্রতিষ্ঠান ও অভিজ্ঞতাসাপেক্ষে
সম্ভাব্য বয়সসীমা: কাজসাপেক্ষে
মূল স্কিল: সৃজনশীলতা, ছবি আঁকায় পারদর্শিতা
বিশেষ স্কিল: ছবি আঁকার সফটওয়্যারে দক্ষতা

কোন ধরনের প্রতিষ্ঠানে একজন কার্টুনিস্ট কাজ করেন?

  • বিজ্ঞাপন সংস্থা
  • পত্রিকা/ সংবাদপত্র
  • চলচ্চিত্র বা এনিমেশন ফার্ম
  • বই মুদ্রণ প্রতিষ্ঠান
  • সরকারি প্রচার ও প্রকাশনা বিভাগ

একজন কার্টুনিস্ট কী ধরনের কাজ করেন?

বিজ্ঞাপনের জন্য কিংবা সংবাদপত্র/ম্যাগাজিনে কার্টুন আঁকা থেকে শুরু করে পুস্তক প্রকাশ ও মুদ্রন বিভাগে থেকে বইয়ের প্রচ্ছদের কাজ এমনকি গৃহসজ্জ্বার কাজে বা বিপণনের কৌশল হিসেবে ব্যবহারের জন্য ওয়াল কার্টুন এঁকে থাকেন।

একজন কার্টুনিস্টের কী ধরনের যোগ্যতা থাকতে হয়?

ছবি আঁকায় পারদর্শী যে কেউই কার্টুনিস্ট হতে পারেন তবে স্বীকৃত যেকোনো বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের ড্রয়িং এন্ড পেইন্টিং বিভাগ থেকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রিধারী হলে অগ্রাধিকার পাওয়া যেতে পারে কাজ পাওয়ার ক্ষেত্রে।

একজন কার্টুনিস্টের কী ধরনের দক্ষতা ও জ্ঞান থাকতে হয়?

সনাতনী পদ্ধতিতে কাগজে কলমে কার্টুন আঁকার সাথে সাথে বর্তমানে প্রযুক্তির সাহায্য কম্পিউটার নির্ভর সফটওয়ারের দ্বারাও বর্তমানে কার্টুন আঁকা বা ইলাস্ট্রেশনের কাজ জানা থাকা ভাল। নিচে কিছু প্রয়োজনীয় কিছু সফটওয়্যারের নাম দেয়া হলোঃ

  • Photoshop
  • Illustrator
  • MangaStudio
  • Indesign
  • Zbrush

কোথায় শিখবেন কার্টুন আঁকার কাজ?

সৃজনশীল এ পেশায় আসতে হলে ব্যক্তিগত উদ্যোগে আঁকাআঁকির অভ্যাসের বিকল্প নেই। তবে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা বিভাগে পড়াশোনা করলে তা কাজে দিতে পারে।

একজন কার্টুনিস্টের কাজের ক্ষেত্র এবং সুযোগ কেমন?

কার্টুন আঁকায় প্রতিভা থাকলে এ পেশায় নিজের পরিচিতি গড়ে তোলার সুযোগ আছে। এছাড়াও প্রযুক্তির ব্যবহার করে বিভিন্ন ডিজিটাল মিডিয়ায় এই পেশার কাজের ব্যাপক চাহিদা রয়েছে।

একজন কার্টুনিস্টের মাসিক আয় কেমন?

সৃজনশীল পেশা হওয়ায় এই পেশায় কোন নির্দিষ্ট আয় নির্ধারণ করা সম্ভব নয়। তবে প্রকাশনা বা মিডিয়ায় কাজ করে গড়ে ১৫ হাজার থেকে শুরু করে ৭৫ হাজার টাকা আয় করা সম্ভব। এক্ষেত্রে প্রজেক্ট যত বেশি পাওয়া যাবে, আয় তত বাড়বে।

ক্যারিয়ার কেমন হতে পারে একজন কার্টুনিস্টের?

বিজ্ঞাপন-বিপননের এই যুগে পেশাদার কার্টুনিস্টদের চাহিদা দিন দিন বেড়েই যাচ্ছে। উন্নত ও বিশেষায়িত সফটওয়ারের কাজ জানা থাকলে ডিজিটাল মার্কেটিং টিমে কাজ পাওয়া খুব সহজ, সেইসাথে সৃজনশীলতার সাক্ষর রাখতে পারলে ভাল উপার্জন ও সামাজিক স্বীকৃতি-মর্যাদা অর্জনের সুযোগ আছে। এছাড়া বইয়ের প্রচ্ছদের কাজেও কার্টুনিস্টদের কাজের ক্ষেত্র তৈরি হয়েছে। পাশাপাশি বিজ্ঞাপন বা চলচ্চিত্রের এনিমেটর হিসেবে কাজের সু্যোগ আছে যা অনেক লাভজনক উপার্জনের উৎস। সুতরাং সৃজনশীল যে কেউ এ পেশায় তার কাংখিত ক্যারিয়ার গড়তে পারেন।

Loading

Leave a Reply

আপনার নাম ও ইমেইল ঠিকানা দেয়া আবশ্যক। তবে মতামতের সাথে ইমেইল দেখানো হবে না।