কেয়ারটেকার

ক্যারিয়ার কন্টেন্ট - ক্যারিয়ারকী (CareerKi)

একজন কেয়ারটেকার কোথায় কাজ করেন?

যে কোন ধরনের প্রতিষ্ঠানেই একজন কেয়ারটেকার নিয়োজিত থাকেন। সব ধরনের সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানেই অফিস বা কর্মক্ষেত্র ব্যবস্থাপনার কাজ সম্পাদনের জন্য একজন কেয়ারটেকার নিয়োগ দেওয়া হয়ে থাকে।

একজন কেয়ারটেকার কী ধরনের কাজ করেন?

একজন কেয়ারটেকার সাধারণত নিম্নে উল্লিখিত কাজগুলো করে থাকেন –

১। অফিস ব্যবস্থাপনার কাজ সম্পাদন করা। অর্থাৎ অফিসের অভ্যন্তরীণ বিষয়াদির ব্যাপারে খেয়াল রাখতে হয় একজন কেয়ারটেকারকে।

২। অফিসের বৈদ্যুতিক সরবরাহসহ অন্যান্য আধুনিক সুযোগ-সুবিধা ও সরঞ্জামসমূহ ঠিক আছে কিনা তা দেখভাল করা এবং এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া।

৩। অফিসের কক্ষ পরিচালনার জন্য প্রয়োজনীয় সরঞ্জামাদির হিসাব রাখা এবং নতুন কোন সরঞ্জামের প্রয়োজন হলে তা ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের জানানো।

৪। কোন অবস্থায় যাতে অফিসে অচলাবস্থার সৃষ্টি না হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

৫। অফিস এবং কক্ষ ব্যবস্থাপনার সামগ্রিক ব্যবস্থাপনা করতে হবে।

একজন কেয়ারটেকারের কী ধরনের যোগ্যতা থাকতে হয়?

১। আপনি একজন কেয়ারটেকার হতে চাইলে আপনাকে ন্যূনতম স্নাতক বা সমমানের ডিগ্রিপ্রাপ্ত হতে হবে।   

২। বিষয়টি কাজ ও প্রতিষ্ঠানসাপেক্ষ হলেও সাধারণত ১ থেকে ২ বছরের পূর্ব অভিজ্ঞতা আছে এমন কাউকে নিয়োগ দেওয়া হয় কেয়ারটেকার হিসেবে।  

৩। এক্ষেত্রে সাধারণত কোন বয়সসীমা উল্লেখ করা থাকে না। তবে বিষয়টি কাজ ও প্রতিষ্ঠানসাপেক্ষ।

৪। লিঙ্গের বিষয়টি এক্ষেত্রে কাজ ও প্রতিষ্ঠানসাপেক্ষ। সাধারণত নারী বা পুরুষ কাকে নিয়োগ দেওয়া হবে তা উল্লেখ করা থাকে নাকিছু ক্ষেত্রে এ বিষয়ে কোন বাধ্যতামূলক যোগ্যতার কথা উল্লেখ করা থাকতে পারে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিতে।

৫। বাস্তব অভিজ্ঞতাসম্পন্ন ও কম্পিউটার পরিচালনায় পারদর্শী হলে প্রার্থী প্রাধান্য পেয়ে থাকেন নিয়োগের ক্ষেত্রে।।

একজন কেয়ারটেকারের মাসিক আয় কেমন?

বিষয়টি কাজ ও প্রতিষ্ঠানসাপেক্ষ। বেসরকারি ক্ষেত্রে একজন কেয়ারটেকারের মাসিক আয় সাধারণত দশ থেকে পনের হাজার টাকা হয়ে থাকেসরকারি ক্ষেত্রে আপনি কেয়ারটেকার হিসেবে নিয়োগ পেলে আপনার মাসিক আয় শুরু হবে জাতীয় বেতন স্কেল অনুযায়ী নির্ধারিত ১০২০০ টাকা থেকে।

 

 

Loading

Leave a Reply

আপনার নাম ও ইমেইল ঠিকানা দেয়া আবশ্যক। তবে মতামতের সাথে ইমেইল দেখানো হবে না।