ক্যাড অপারেটর (গার্মেন্টস)

ক্যারিয়ার কন্টেন্ট - ক্যারিয়ারকী (CareerKi)

একজন গার্মেন্টস ক্যাড অপারেটর/প্যাটার্ন মেকার বায়ারের চাহিদা অনুযায়ী কম্পিউটার এইডেড ডিজাইনিং এর মাধ্যমে উৎপাদনের লক্ষ্যে পোশাকের ডিজাইন করে থাকেন।

সাধারণ পদবী: ক্যাড ডিজাইনার/ টেকনিশিয়ান/ অপারেটর, প্যাটার্ন মাস্টার/মেকার

বিভাগ: ফ্যাশন ডিজাইনিং

প্রতিষ্ঠানের ধরন: গার্মেন্টস, এপারেল ইন্ডাস্ট্রি

ক্যারিয়ারের ধরন: পার্ট-টাইম/ ফুল টাইম

লেভেল: এন্ট্রি/ মিড

অভিজ্ঞতা সীমা: অধিকাংশ প্রতিষ্ঠানে ক্যাড ডিজাইনিং ও পোশাক তৈরি সংশ্লিষ্ট পেশায় ৩-৫ বছরের অভিজ্ঞতা চাওয়া হয়।

সম্ভাব্য বেতন সীমা: কাজ ও প্রতিষ্ঠানসাপেক্ষ

সম্ভাব্য বয়স সীমা:  প্রতিষ্ঠান সাপেক্ষ। তবে ২৮-৪০ বছর বয়সকে প্রাধান্য দেওয়া হয়

মূল স্কিল:  AutoCad বা Lectra এর মত ফ্যাশন ডিজাইনিং সফটওয়্যার এ দক্ষ হতে হবে

বিশেষ স্কিল:  সৃজনশীল ডিজাইনিং, যে কোন সমস্যা যুক্তির মাধ্যমে সমাধানের দক্ষতা, জ্যামিতিক নকশায় দক্ষতা

একজন গার্মেন্টস ক্যাড অপারেটর কোন ধরনের প্রতিষ্ঠান বা শিল্পে কাজ করেন?

একজন গার্মেন্টস ক্যাড অপারেটর/প্যাটার্ন মেকার গার্মেন্টসসহ অন্যান্য পোশাক শিল্প কারখানায় কাজ করেন।

একজন গার্মেন্টস ক্যাড অপারেটর কী ধরনের কাজ করেন?

  •    বায়ারের চাহিদা অনুযায়ী প্যাটার্ন তৈরি করা
  •    প্যাটার্ন তৈরির পর বায়ারের কাছ থেকে মতামত নেওয়া এবং সে অনুযায়ী প্যাটার্নে পরিবর্তন আনা
  •    সম্পূর্ণ নির্ভুলভাবে প্যাটার্ন তৈরি করা
  •    প্যাটার্ন তৈরির পর প্রোডাকশন টিমকে প্যাটার্ন বর্ণনা করা এবং প্রয়োজনীয় টেকনিক্যাল সাপোর্ট দেওয়া
  •    স্ট্যান্ডার্ড প্যাটার্ন তৈরির মাধ্যমে যতটা সম্ভব উৎপাদন খরচ হ্রাস করা
  •    বায়ার, মার্চেন্ডাইজার, প্রোডাকশন টিমের সাথে সর্বদা যোগাযোগ রাখতে হবে

একজন গার্মেন্টস ক্যাড অপারেটরের শিক্ষাগত যোগ্যতা কী?

ক্যাড অপারেটর হিসেবে কাজ করতে চাইলে ক্যাড ডিজাইনিং বা প্যাটার্ন মেকিং এ ডিপ্লোমা ডিগ্রি থাকা শ্রেয় ক্যাড ডিজাইনিং এ দক্ষ হলে যে কোন বিষয়ে স্নাতক ডিগ্রিধারীরাই চাকুরির জন্য আবেদন করতে পারেন। আবার গার্মেন্টস ক্যাড ডিজাইনিং এ অভিজ্ঞ ও দক্ষ হলে অনেক প্রতিষ্ঠানে মাধ্যমিক পাশ প্রার্থীদেরকেও কাজের সুযোগ দেওয়া হয় এ পেশায় শিক্ষাগত যোগ্যতা থেকে কাজের দক্ষতাই মূল বিবেচ্য বিষয়।

একজন গার্মেন্টস ক্যাড অপারেটরের কী কী দক্ষতা ও জ্ঞান থাকতে হয়?

  •    ক্যাডের বিভিন্ন সফটওয়্যার ব্যবহারে পারদর্শী হতে হবে
  •    জ্যামিতিক নকশা পাঠোদ্ধার এবং বর্ণনা করতে সক্ষম হতে হবে
  •    ডিজাইনিং এর যে কোন ধরনের সমস্যা সমাধানের দক্ষতা থাকতে হবে
  •    প্যাটার্ন মেকিং এবং গ্রেডিং এর উপর জ্ঞান থাকতে হবে
  •    যোগাযোগের দক্ষতা থাকতে হবে
  •    নির্ভুলভাবে কাজ করার দক্ষতা থাকতে হবে, কারণ ডিজাইনের সামান্য ভুলে ইন্ডাস্ট্রির বিশাল অঙ্কের ক্ষতি হবে

কোথায় পড়াশোনা করবেন গার্মেন্টস ক্যাড অপারেটর হতে চাইলে?

বিজিএমইএ ইউনিভার্সিটি অফ ফ্যাশন এন্ড টেকনোলজি(BUFT), বিজিএমআই, বিসিআই ইঞ্জিনিয়ারিং ইন্সটিটিউট সহ আরো কিছু প্রতিষ্ঠানে গার্মেন্টস ডিজাইন/ক্যাড ডিজাইন এবং প্যাটার্ন মেকিং/ মার্কার মেকিং এ ডিপ্লোমা ও সার্টিফিকেট কোর্সে করানো হয় এছাড়া ছোটখাটো অসংখ্য প্রতিষ্ঠানে ক্যাড ডিজাইনিং এর উপর প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়।

একজন গার্মেন্টস ক্যাড অপারেটরের কাজের ক্ষেত্র ও সুযোগ কেমন?

বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় শিল্প খাত হচ্ছে পোশাক শিল্প। রপ্তানী আয়ের শতকরা ৮৬ ভাগ আসে পোশাক খাত থেকে। জিডিপিতে এ খাতের অবদান শতকরা ১৩ ভাগ ২০১৫ সালে এসে শুধু গার্মেন্টস এর সংখ্যা দাঁড়ায় ৭ হাজারে

গার্মেন্টস, স্পিনিং, ফ্যাব্রিক ম্যানুফেকচারিং, ডাইয়িং, নিটিং, প্রিন্টিং মিল মিলিয়ে বাংলাদেশে এখন আনুমানিক ১২ হাজারের বেশি টেক্সটাইল ইন্ডাস্ট্রি আছে। মানসম্মত প্রায় সকল পোশাক শিল্প কারখানায় ক্যাড অপারেটর প্রয়োজন। স্কয়ার, নোমান গ্রুপ, ডিবিএল গ্রুপ, আকিজ, এনভয়, বেক্সিমকোর মত বড় বড় কোম্পানির টেক্সটাইল মিলে ভালো ভালো মানের বেতনে ক্যাড অপারেটর হিসেবে কাজের সুযোগ রয়েছে। বাংলাদেশে পোশাক শিল্প কারখানা গুলো ঢাকা, গাজীপুর, নারায়ণগঞ্জ, চট্রগ্রাম কেন্দ্রিক বিধায় গার্মেন্টস ক্যাড অপারেটরদের কাজও এ স্থান গুলোতে সীমাবদ্ধ। পোশাক শিল্পখাতের প্রসারের সাথে সাথে এ পেশার চাহিদাও দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে।

একজন গার্মেন্টস ক্যাড অপারেটরের মাসিক আয় কেমন?

কাজ ও প্রতিষ্ঠানসাপেক্ষ

ক্যারিয়ার কেমন হতে পারে একজন গার্মেন্টস ক্যাড অপারেটরের?

এই পেশায় ডিগ্রির থেকে যেহেতু কাজের অভিজ্ঞতা এবং দক্ষতা ই প্রধান সেহেতু শুরতে যে কোন পোশাক শিল্প কারখানায় ইন্টার্নশীপ এর মাধ্যমে অভিজ্ঞতা অর্জন করতে হয়। এরপর সহকারী প্যাটার্ন মাস্টার হিসেবে কাজ করে দক্ষতার পরিচয় দিলে ডিজাইনিং বিভাগের প্রধান হওয়া সম্ভব। ক্যারিয়ারের একদম শুরুতে বড় ধরনের কারখানায় কাজের সুযোগ কম থাকলেও দক্ষ হলে এবং অভিজ্ঞতা অর্জন করলে পরবর্তীতে বড় ধরনের পোশাক তৈরি কারখানায় কাজের সুযোগ পাওয়া সম্ভব।

 

Loading

Leave a Reply

আপনার নাম ও ইমেইল ঠিকানা দেয়া আবশ্যক। তবে মতামতের সাথে ইমেইল দেখানো হবে না।