পেইন্টার

পেইন্টার বা চিত্রশিল্পী: ক্যারিয়ার প্রোফাইল - ক্যারিয়ারকী (CareerKi)

একজন পেইন্টার বা চিত্রশিল্পী বিভিন্ন মাধ্যমে চিত্রকর্ম ফুটিয়ে তোলেন। বর্তমানে প্রযুক্তির উৎকর্ষের যুগেও এই পেশার চাহিদা বহাল আছে। বইয়ের প্রচ্ছদ থেকে শুরু করে বিভিন্ন ডিজিটাল ফর্মে এই পেশার প্রসার ঘটছে। সৃজনশীল মনন ও ছবি আঁকার আগ্রহ থাকলে এই ভিন্নমাত্রার পেশায় যুক্ত হয়ে গড়তে পারেন আকর্ষণীয় ক্যারিয়ার।

এক নজরে একজন পেইন্টার

সাধারণ পদবী:পেইন্টার
বিভাগ:বিজ্ঞাপন বিভাগ,আর্ট, ব্যাক্তিগত প্র্যাকটিস
প্রতিষ্ঠানের ধরন:সরকারি, বেসরকারি প্রতিষ্ঠান, প্রাইভেট প্র্যাকটিস
ক্যারিয়ারের ধরন:পার্ট-টাইম, ফুল টাইম
লেভেল:এন্ট্রি, মিড
অভিজ্ঞতা সীমা:কাজ ও প্রতিষ্ঠানসাপেক্ষ
সম্ভাব্য বেতনসীমা:কাজ, প্রতিষ্ঠান ও অভিজ্ঞতাসাপেক্ষে
সম্ভাব্য বয়সসীমা:কাজসাপেক্ষে
মূল স্কিল:ছবি আঁকা, টেকনোলজিকাল স্কিল
বিশেষ স্কিল:ক্রিয়েটিভ ডিজাইনিং

কোন ধরণের প্রতিষ্ঠানে একজন পেইন্টার কাজ করেন?

  • টেলিভিশন মিডিয়া;
  • অ্যাড ফার্ম;
  • সংবাদপত্র;
  • অ্যানিমেশন ও গেম তৈরির প্রতিষ্ঠান;
  • ডিজাইন;
  • পেইন্টিং স্কুল;
  • চারুকলা বিভাগে শিক্ষকতা;
  • ফ্রিল্যান্স কাজ।

সৃজনশীল পেশা হলেও এই পেশায় চাকরির কর্মক্ষেত্র এবং ক্রমবর্ধমান চাহিদা আছে , যে কারণে এই বিষয়ে চারুকলায় ভর্তির ব্যাপারে আগ্রহী শিক্ষার্থীর সংখ্যাও দিন দিন বাড়ছে।

একজন পেইন্টার কী ধরনের কাজ করেন?

  • বিপণন বিভাগ/ কার্টুনিস্টঃ আইডিয়া অনুযায়ী চিত্রকর্ম আঁকা;
  • নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে তা জমা দেয়া;
  • চারুকলা বিভাগঃ চিত্রকলা সম্পর্কে শিক্ষকতা;
  • পেইন্টিং স্কুলঃ শিক্ষার্থীদের ছবি আঁকা শেখানো;
  • গ্রাফিক্স ডিজাইনার/ ডিজিটাল আর্টিস্টঃ বিভিন্ন ওয়েব টুল ব্যবহার করে ডিজিটাল আর্ট তৈরি ও কালারিং;
  • নিজ কাজের পোর্টফলিও তৈরি করে ওয়েবসাইটে দেয়া;

একজন পেইন্টারের কী ধরনের দক্ষতা ও জ্ঞান থাকতে হয়?

  • ক্যানভাস, বিভিন্ন ধরনের রঙ ইত্যাদি সম্পর্কে জ্ঞান;
  • ডিজিটাল আর্ট করার ক্ষেত্রে ডিভাইস ও সফটওয়্যার সম্পর্কে ধারণা;
  • বিপণন ও প্রোজেক্টের ক্ষেত্রে আইডিয়া বুঝে পরামর্শ দেয়া ও কাজ করা;
  • সময়ানুবর্তিতা;
  • কাজে সৃজনশীলতা ও অনন্যতা নিশ্চিত করা;
  • শিক্ষাদানের ক্ষেত্রে চারুকলা বিষয়ে ব্যাচেলর বা মাস্টার্স ডিগ্রি;

কোথায় শিখবেন পেইন্টিং?

  • পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়;
  • বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়;
  • প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা ছাড়াও ছবি আঁকায় পারদর্শী হলে এই পেশায় কাজ করা সম্ভব।।

দেশের সাতটি সরকারী বিশ্ববিদ্যালয় ও দুটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর পর্যায়ে চারুকলা বিষয়ে পড়াশোনার সুযোগ রয়েছে। চারুকলা বিষয়ে পড়ে পেইন্টিংয়ে ক্যারিয়ার গড়ার সুযোগ রয়েছে।

একজন পেইন্টারের কাজের ক্ষেত্র এবং সুযোগ কেমন?

চিত্রকলায় প্রতিভা থাকলে এই পেশায় নিজের পরিচিতি গড়ে তোলার সুযোগ আছে। এছাড়াও প্রযুক্তির ব্যবহার করে বিভিন্ন ডিজিটাল মিডিয়ায় এই পেশার কাজের ব্যাপক চাহিদা রয়েছে।

একজন পেইন্টারের মাসিক আয় কেমন?

সৃজনশীল পেশা হওয়ায় এই পেশায় কোন নির্দিষ্ট আয় নির্ধারণ করা সম্ভব নয়। তবে প্রকাশনা বা মিডিয়ায় গ্রাফিক্স ডিজাইনার পদে কাজ করে ১৫ হাজার থেকে শুরু করে ৭৫ হাজার বা এক লাখ টাকা আয় করা সম্ভব। এছাড়া সংবাদপত্রে সিনিয়র আর্টিস্ট বা কার্টুনিস্ট পদে কাজ করে ৭ থেকে ২২ হাজার টাকা আয় করা সম্ভব। নিজের চিত্রকর্ম বিক্রি করে এক একটি চিত্রকর্মের জন্য এমনকি লাখ টাকাও পাওয়া সম্ভব।

ক্যারিয়ার কেমন হতে পারে একজন পেইন্টারের?

ছবি আঁকার প্রতি আগ্রহ থাকলে এই পেশায় যোগদান করে সৃজনশীলতার পাশাপাশি আয়ের সংস্থানও করা সম্ভব। পেইন্টারের পেশাটি এমন একটি পেশা যার চাহিদা প্রযুক্তিগত যুগেও বর্ধনশীল। এই পেশায় ক্যারিয়ার গড়ে যেমন বরেণ্য চিত্রশিল্পী হবার হাতছানি আছে তেমনই নানাবিধ কর্মক্ষেত্রে রয়েছে বৈচিত্রময় পেশায় যুক্ত হয়ে ক্যারিয়ার গড়বার সুযোগ। তাই আগ্রহ ও প্রতিভা থাকলে অনন্য এই পেশাকে ক্যারিয়ার হিসেবে বেছে নিতে পারেন আপনিও।

Leave a Reply

আপনার নাম ও ইমেইল ঠিকানা দেয়া আবশ্যক। তবে মতামতের সাথে ইমেইল দেখানো হবে না।