প্যাথলজিস্ট

প্যাথলজিস্ট: ক্যারিয়ার প্রোফাইল - ক্যারিয়ারকী (CareerKi)

একজন প্যাথলজিস্ট রোগ নির্ণয় ও চিকিৎসার জন্য গবেষণা ও অনুসন্ধান করে থাকেন। রোগীর দেহের টিস্যু, রক্ত ও তরল পরীক্ষার মাধ্যমে রোগের ধরন ও কারণ বের করতে তিনি সাহায্য করেন।

বাংলাদেশের বহু হাসপাতাল ও ক্লিনিকে এ পেশার চাহিদা রয়েছে। আপনি চাইলেই প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ ও প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা গ্রহণ করে এ পেশায় যোগ দিতে পারেন, যা একই সাথে মর্যাদাপূর্ণ ও ভালো আয়ের সুযোগ বহন করে।

এক নজরে একজন প্যাথলজিস্ট

সাধারণ পদবী: প্যাথলজিস্ট, মেডিকেল টেকনোলজিস্ট
বিভাগ: স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা
প্রতিষ্ঠানের ধরন: সরকারি, বেসরকারি
ক্যারিয়ারের ধরন: ফুল টাইম
লেভেল: এন্ট্রি, মিড
এন্ট্রি লেভেলে অভিজ্ঞতা সীমা: ১ – ২ বছর
এন্ট্রি লেভেলে সম্ভাব্য গড় বেতন: ৳১৫,০০০ – প্রতিষ্ঠানসাপেক্ষ
এন্ট্রি লেভেলে সম্ভাব্য বয়স সীমা: কাজ ও প্রতিষ্ঠানসাপেক্ষ
মূল স্কিল: সঠিকভাবে রোগ নির্ণয়ের দক্ষতা, ল্যাবরেটরি প্রযুক্তি ব্যবহারে দক্ষতা, গভীর মনোযোগ
বিশেষ স্কিল: ল্যাবরেটরি ব্যবস্থাপনা, যোগাযোগের দক্ষতা

একজন প্যাথলজিস্ট কোথায় কাজ করেন?

  • সরকারি-বেসরকারি হাসপাতাল
  • সরকারি-বেসরকারি ক্লিনিক ও স্বাস্থ্যকেন্দ্র
  • ডায়াগনস্টিকস ল্যাব
  • রোগ নির্ণয় গবেষণা প্রতিষ্ঠান
  • আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ফরেনসিক বিভাগ

একজন প্যাথলজিস্ট কী ধরনের কাজ করেন?

  • রোগীর মল, মূত্র, রক্ত ও কাশি সংগ্রহ করা ও পরীক্ষা করা;
  • পরীক্ষার ভিত্তিতে প্রতিবেদন তৈরি করা;
  • রোগীর স্বাস্থ্য পরীক্ষার রেকর্ড রাখা;
  • ল্যাবরেটরি সরঞ্জামের রক্ষণাবেক্ষণ করা;
  • ক্ষেত্রবিশেষে রোগ নির্ণয়ের পদ্ধতি নিয়ে গবেষণা করা;
  • নতুন কর্মীদের প্রশিক্ষণ দেয়া।

একজন প্যাথলজিস্টের কী ধরনের যোগ্যতা থাকতে হয়?

শিক্ষাগত যোগ্যতাঃ প্যাথলজিস্ট হতে হলে ন্যূনতম শিক্ষাগত যোগ্যতা হিসাবে মেডিকেল টেকনোলজির ডিপ্লোমা কোর্স করা থাকতে হবে আপনার।

অভিজ্ঞতাঃ প্যাথলজিস্ট হিসেবে কাজ করতে হলে অবশ্যই কোন প্রতিষ্ঠানে আগে ইন্টার্নশিপের অভিজ্ঞতা নিতে হবে।

একজন প্যাথলজিস্টের কী ধরনের দক্ষতা ও জ্ঞান থাকতে হয়?

  • মেডিকেল টেকনোলজি সম্পর্কিত জ্ঞান;
  • রোগ নির্ণয় ও চিকিৎসায় ব্যবহৃত যন্ত্রপাতির সঠিক ব্যবহার জানা;
  • রোগীর সমস্যার কথা মনোযোগ দিয়ে শোনা;
  • সঠিকভাবে রোগ নির্ণয়ের দক্ষতা;
  • গভীর মনোযোগ সহকারে কাজ করার মানসিকতা।

কোথায় পড়বেন প্যাথলজি নিয়ে?

বাংলাদেশে মোট ২৩৮টি মেডিকেল টেকনোলজি ইন্সটিটিউট আছে। এগুলোতে চার বছর মেয়াদি ডিপ্লোমা ইন ল্যাবরেটরি কোর্সে প্যাথলজি পড়ানো হয়। তবে বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ড অনুমোদিত প্রতিষ্ঠানে পড়াই ভালো। এছাড়া অনেক প্রতিষ্ঠান মেডিকেল টেকনোলজিতে বিএসসি করারও সুযোগ দিচ্ছে।

উল্লেখ্য যে, বাইরের দেশে সাধারণত ডাক্তার হবার পর প্যাথলজিতে বিশেষায়িত ডিগ্রি নিয়ে প্যাথলজিস্ট হিসাবে কাজ করা যায়। কিন্তু আমাদের দেশে মেডিকেল টেকনোলজিস্টরা এ দায়িত্ব পালন করেন।

একজন প্যাথলজিস্টের মাসিক আয় কেমন?

প্রাথমিকভাবে একজন শিক্ষানবিশ মেডিকেল সহকারী হিসেবে ক্যারিয়ার শুরু করলে মাসিক ৳১০,০০০ – ৳১৫,০০০ উপার্জনের সুযোগ আছে। অভিজ্ঞতা, কাজের দক্ষতা ও কারিগরি প্রশিক্ষণ লাভের মাধ্যমে আয় বেড়ে যাবে কয়েক গুণ।

একজন প্যাথলজিস্টের ক্যারিয়ার কেমন হতে পারে?

বাংলাদেশের অসংখ্য হাসপাতাল, ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক ল্যাবের পাশাপাশি সরকারি গবেষণাগারে মেডিক্যাল সহকারীদের কাজের সুযোগ রয়েছে। পর্যাপ্ত কারিগরি ও বিশেষায়িত প্রশিক্ষণ ও অভিজ্ঞতা থাকলে অনেক বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাসহ স্বাস্থ্য ও রোগ নিয়ে কাজ করা বিভিন্ন উন্নয়ন সংস্থায় গবেষণার কাজ পেতে পারেন।

Loading

Leave a Reply

আপনার নাম ও ইমেইল ঠিকানা দেয়া আবশ্যক। তবে মতামতের সাথে ইমেইল দেখানো হবে না।