প্রোগ্রাম অফিসার

প্রোগ্রাম অফিসার: ক্যারিয়ার প্রোফাইল - ক্যারিয়ারকী (CareerKi)

সাধারণত উন্নয়ন সংস্থাগুলোর প্রকল্প বাস্তবায়নের বিভিন্ন কর্মসূচির তদারকির কাজ করেন একজন প্রোগ্রাম অফিসার।

এক নজরে একজন প্রোগ্রাম অফিসার

সাধারণ পদবী:প্রোগ্রাম অফিসার/ প্রজেক্ট অফিসার
বিভাগ:ডেভেলপমেন্ট সেক্টর
প্রতিষ্ঠানের ধরন:এনজিও
ক্যারিয়ারের ধরন:চুক্তিভিত্তিক/স্থায়ী
লেভেল:মিড
অভিজ্ঞতা সীমা:অন্তত ২ বছর। বড় মাপের প্রজেক্টে কাজের জন্য ৮-১০ বছরের অভিজ্ঞতা প্রয়োজন
সম্ভাব্য বেতনসীমা:প্রতিষ্ঠানভেদে ২০—৫০ হাজার টাকা। বড় ধরনের প্রজেক্টে লাখ টাকার অধিক ও হয়ে থাকে
সম্ভাব্য বয়সসীমা:বড়মাপের চুক্তিভিত্তিক প্রোগ্রামে বাঁধাধরা বয়স সাধারণত থাকেনা। তবে মাঝারি মাপের প্রতিষ্ঠানে স্থায়ী হিসেবে নিয়োগের জন্য ২৫-৪০ বছরের প্রার্থীদের প্রাধান্য দেওয়া হয়
মূল স্কিল:প্রোগ্রাম সম্পর্কিত বাস্তব ও তাত্ত্বিক জ্ঞান, উন্নয়ন খাতে মাঠ পর্যায়ে কাজের অভিজ্ঞতা
বিশেষ স্কিল:যোগাযোগের দক্ষতা, চাপ সামলাবার দক্ষতা, একাধিক কাজ সমন্বয়ের দক্ষতা

কোন ধরণের প্রতিষ্ঠানে একজন প্রোগ্রাম অফিসার কাজ করেন?

সাধারণত NGO (Non-Government Organization) গুলোয় প্রোগ্রাম অফিসার বেশি প্রয়োজন হয়। NGO হলো বেসরকারি অলাভজনক সংগঠন যারা দেশ, সমাজ ও মানুষের উন্নয়নের জন্য নানামুখী কাজ করে থাকে। এদের উদ্দেশ্য হচ্ছে বিভিন্ন বিদেশি দাতাদের অর্থায়নের ভিত্তিতে সরকারকে উন্নয়নে সহযোগীতা করা ও আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে সক্রিয় অবদান রাখা। এছাড়া বিদেশী দাতা সংস্থা গুলোর বিভিন্ন কর্মসুচিতেও সরাসরি প্রোগ্রাম অফিসার হিসেবে কাজের সুযোগ আছে।

একজন প্রোগ্রাম অফিসার কী ধরনের কাজ করেন?

  • প্রোগ্রাম সংশ্লিষ্ট কাজের জন্য প্রয়োজনে অন্যান্য সংস্থা, সরকারি প্রতিষ্ঠানের সাথে যোগাযোগ করতে হবে;
  • ম্যানেজমেন্ট টিমকে কাজের ব্যাপারে সাহায্য করতে হবে;
  • প্রোগ্রামের অন্যান্য কর্মী ও প্রয়োজনে সুবিধাভোগীদেরও প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করতে হবে;
  • প্রোগ্রাম সংশ্লিষ্ট এনজিও ও দাতা সংস্থার নীতিমালা অনুযায়ী পরিচালিত হচ্ছে কিনা সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে;
  • প্রোগ্রামের সকল মিটিং, প্রশিক্ষণ, কর্মসুচী যথাযথভাবে হচ্ছে কিনা তা নিশ্চিত করতে হবে;
  • প্রোগ্রামের সাথে জড়িত ট্রান্সপোর্ট টিম, সাপ্লাই চেইন টিম, টেকনিক্যাল টিমের সাথে সমন্বয় করে কাজ চালিয়ে যেতে হবে;
  • প্রোগ্রাম মনিটরিং, এভালুয়েশন, ডাটা কালেকশন, ডাটা অ্যানালাইসিস, ডাটা ম্যানেজমেন্ট ও রিপোর্টিং তদারক করতে হবে;
  • প্রোগ্রামের সকল ডাটা নীতিমালা অনুযায়ী সংগ্রহ করতে হবে, মাঠ পর্যায়ে গিয়ে ডাটা কালেকশন করতে হবে;
  • প্রোগ্রাম প্ল্যানিং ও বাজেট তৈরিতে সংস্থাকে সাহায্য করতে হবে;
  • প্রোগ্রামের অগ্রগতি, সমস্যা, ফলাফল সম্পর্কে প্রোগ্রাম কোঅর্ডিনেটর ও অন্যান্য কর্তৃপক্ষকে সব সময় অবহিত করতে হবে;

মোট কথা একজন প্রোগ্রাম অফিসারকে কোন প্রোগ্রাম এর মাঠ পর্যায়ের সকল কার্যক্রম সুপারভিশন মনিটরিং করতে হবে

একজন প্রোগ্রাম অফিসারের কী ধরনের যোগ্যতা থাকতে হয়?

অধিকাংশ ক্ষেত্রে এনজিও তে কাজ করতে চাইলে সামাজিক বিজ্ঞান, রাষ্ট্র বিজ্ঞান, উন্নয়ন অধ্যয়ন, অর্থনীতি, ইংরেজি কিংবা বিবিএ , ম্যানেজমেন্ট এ স্নাতক/স্নাতকোত্তর ডিগ্রী থাকতে হয়। বিশেষ ধরনের কোন প্রোগ্রাম যেমন কৃষি, স্বাস্থ্য, শিক্ষা খাতে কাজ করতে চাইলে উক্ত বিষয়ে ডিগ্রীধারিদের প্রাধান্য দেওয়া হয়।

একজন প্রোগ্রাম অফিসারের কী ধরনের দক্ষতা ও জ্ঞান থাকতে হয়?

  • গ্রামীণ পরিবেশে অবস্থান করে দুর্গম/চরাঞ্চলে কাজ করার মানসিকতা থাকতে হবে;
  • যেহেতু মাঠ পর্যায়ে কাজ করতে হবে অবশ্যই ভালো যোগাযোগের দক্ষতা থাকতে হবে;
  • প্রোগ্রাম এর উদ্দেশ্য ও প্রোগ্রাম বাস্তবায়ন এর উপায় সম্পর্কে সামগ্রিক জ্ঞান থাকতে হবে;
  • মাইক্রোসফট ওয়ার্ড, এক্সেল এর মত সফটওয়্যার এর ব্যবহার জানতে হবে;
  • সাংগাঠনিক দক্ষতা থাকতে হবে;
  • প্রোগ্রাম এর সাথে জড়িত দাতা সংস্থা,বিদেশী সরকার,স্থানীয় সরকারের সাথে প্রতিনিয়ত যোগাযোগ রেখে এক সাথে একাধিক কাজের চাপ সামলাবার মানসিক দক্ষতা থাকতে হবে;
  • কালচারাল আন্ডারস্ট্যান্ডিং এবং লোকজ সংস্কৃতির প্রতি সম্মান প্রদানের মানসিকতা;
  • টেকনিক্যাল ও ফাংশনাল স্কিল থাকতে হবে।

কোথায় পড়াশোনা করবেন প্রোগ্রাম অফিসার হতে চাইলে?

বাংলাদেশের প্রায় সকল সাধারণ পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত কলেজ ও কিছু বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে সামাজিক বিজ্ঞান, অর্থনীতি, ইংরেজি, বিবিএ পড়বার সুযোগ আছে।
এছাড়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়, চট্রগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অফ প্রফেশনালস(BUP), ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়, ইস্ট-ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটি, ড্যাফোডিল ইউনিভার্সিটিতে উন্নয়ন অধ্যয়ন(Development Studies) পড়ার সুযোগ আছে।

একজন প্রোগ্রাম অফিসারের কাজের ক্ষেত্র এবং সুযোগ কেমন?

বাংলাদেশে সরকারের পাশাপাশি শিক্ষা, স্বাস্থ্য, কৃষি, কর্মসংস্থান ও অন্যান্য উন্নয়ন খাতে অসংখ্য এনজিও এবং দাতা সংস্থা কাজ করছে। আন্তর্জাতিক দাতা সংস্থার মধ্যে USAID,UNHCR, UNDP, UNDP, RED CROSS, WORLD FOOD PROGRAM, FAO, WORLD BANK, CHRISTIAN AID, EUROPEAN UNION ইত্যাদি কাজ করছে। স্থানীয় এন জি ও এর মধ্যে ব্র্যাক, আশা, গ্রামীণ ব্যাংক, গ্রামীণ শক্তি, জাগরণী চক্রের কাজের ব্যাপ্তি সমগ্র দেশ জুড়ে । কেয়ার, কারিতাস,একশন এইড, ডেনিশ রিফিউজি কাউন্সিল, অক্সফার্ম, উইনরক ইন্টারন্যাশনাল এর মত বিদেশী এন জি ও গুলো কয়েক বছর ধরে বাংলাদেশে কাজ করে। ২০১৭ সালের আগস্ট মাসের হিসাব অনুযায়ী দেশী-বিদেশী ছোট বড় মিলিয়ে বাংলাদেশে মোট ২৫৩৩ টি এন জি ও কাজ করে। এই সকল প্রতিষ্ঠানে বিভিন্ন প্রোগ্রাম এর জন্য বিপুল সংখ্যক প্রোগ্রাম অফিসার প্রয়োজন । স্থায়ী ও চুক্তিভিত্তিক উভয় ধরনের কাজের সুযোগ আছে।

একজন প্রোগ্রাম অফিসারের মাসিক আয় কেমন?

প্রান্তিক অঞ্চলে ছোটখাট এনজিও গুলোতে বেতন তুলনামূলকভাবে কম হয়। যেমন সাগরিকা সমাজ উন্নয়ন সংস্থাতে পিকেএসএফ এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নের আর্থিক সহায়তায় পরিচালিত এক প্রোগ্রামের জন্য প্রোগ্রাম অফিসারের বেতন ঠিক করা হয়েছে ১৩৫০০ টাকা। মাঝারি আকারের এনজিও গুলোতে বেতন ২০-৫০ হাজার টাকা হয়ে থাকে। তবে ২-৫ বছরের অভিজ্ঞতা থাকা বাঞ্ছনীয়। যেমন সৃজনী বাংলাদেশ এ প্রোগ্রাম অফিসারের বেতন ২৭২৫০ টাকা । আবার লোকাল এনভায়রনমেন্ট ডেভেলপমেন্ট এন্ড এগ্রিকালচার রিসার্চ সোসাইটিতে প্রোগ্রাম অফিসার(কৃষি) এর বেতন ২৩ হাজার টাকা। আবার বিদেশী এনজিও কারিতাসে প্রোগ্রাম অফিসার ( শিক্ষা) এর বেতন ৫০ হাজার টাকা নির্ধারিত। বিদেশী দাতা সংস্থা ও বড় বড় এনজিওগুলোতে বেতন অনেক সময় লাখের উপরে হয়ে থাকে। তবে এক্ষেত্রে অনেক বছর কাজের অভিজ্ঞতা ও দক্ষতা থাকতে হবে।

ক্যারিয়ার কেমন হতে পারে একজন প্রোগ্রাম অফিসারের?

বাংলাদেশে এনজিও তে কাজের সুযোগ অনেক। শুরুতে ছোট মাপের এনজিও তে কাজের অভিজ্ঞতা থাকলে পরবর্তীতে দেশীয় বড় এনজিও কিংবা বিদেশী এনজিও তে কাজের সুযোগ পাওয়া যায়। ইংরেজিতে দক্ষ এবং অন্যান্য যোগ্যতা থাকলে আন্তর্জাতিক দাতা সংস্থায় কাজের সুযোগ অনেক। অথবা একই প্রতিষ্ঠানে প্রোগ্রাম অফিসার হিসেবে দক্ষতার পরিচয় দিলে প্রোগ্রাম ম্যানেজার হওয়া সম্ভব। কোন বিশেষ উন্নয়ন খাত সম্পর্কে গভীর জ্ঞান থাকলে পলিসি মেকিং বা আরো উপরের পর্যায়ে কাজ করা সম্ভব। এনজিও তে কাজের সুবাদে দেশের প্রান্তিক অঞ্চল আবার অনেক সময় অন্যান্য দেশ ভ্রমণের অভিজ্ঞতা ও সঞ্চয় করা যায়। কাজেই মানুষের পাশাপাশি থেকে তাদের উপকার করার ইচ্ছা ও মানসিকতা থাকলে এনজিও’র চাকুরী আপনার জন্য আদর্শ ক্যারিয়ার গঠনের স্থান হতে পারে।

Loading

Leave a Reply

আপনার নাম ও ইমেইল ঠিকানা দেয়া আবশ্যক। তবে মতামতের সাথে ইমেইল দেখানো হবে না।