প্রোডাক্ট ম্যানেজার

প্রোডাক্ট ম্যানেজার হতে চাইলে - ক্যারিয়ারকী (CareerKi)

একজন প্রোডাক্ট ম্যানেজার একটি প্রতিষ্ঠানের পণ্য উৎপাদন, বিপণন ও বণ্টনের সার্বিক ব্যবস্থাপনা করে থাকেন। এর জন্য আপনাকে বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মী, কাস্টমার ও কর্তৃপক্ষের সাথে সম্পর্ক রক্ষা করতে হবে।

এক নজরে একজন প্রোডাক্ট ম্যানেজার

সাধারণ পদবী: প্রোডাক্ট ম্যানেজার
বিভাগ: ব্যবসা ও বাণিজ্য
প্রতিষ্ঠানের ধরন: প্রাইভেট ফার্ম, কোম্পানি
ক্যারিয়ারের ধরন: ফুল-টাইম, চুক্তিভিত্তিক
লেভেল: মিড
মিড লেভেলে অভিজ্ঞতা সীমা: ৩ – ৫ বছর
মিড লেভেলে সম্ভাব্য গড় বেতন: ৳৪০,০০০ – ৳৬০,০০০
মিড লেভেলে সম্ভাব্য বয়স সীমা: ২৮ – ৩৫ বছর
মূল স্কিল: ব্যবসায়িক ধারণা, ব্যবসায়িক সমাধান দিতে পারা, ব্যবস্থাপনা
বিশেষ স্কিল: যোগাযোগের দক্ষতা, সহযোগিতার সম্পর্ক তৈরি করতে পারা

একজন প্রোডাক্ট ম্যানেজার কোথায় কাজ করেন?

সাধারণত পণ্য উৎপাদনকারী যেকোন প্রতিষ্ঠানে এ পদ পাওয়া যায়। বিশেষ করে নতুন কোন পণ্য বাজারে নিয়ে আসার ক্ষেত্রে বা নতুন বাজারে ব্যবসা সম্প্রসারণের সময় প্রোডাক্ট ম্যানেজার নিয়োগ দিয়ে থাকে প্রতিষ্ঠানগুলো।

বর্তমানে সফটওয়্যার ও অ্যাপ কোম্পানিগুলোতেও কাজের বড় সুযোগ তৈরি হয়েছে এ পেশার জন্য।

একজন প্রোডাক্ট ম্যানেজার কী ধরনের কাজ করেন?

  • পণ্য উৎপাদন, বিপণন ও বাজারজাতকরণের প্রাথমিক বিষয়গুলো নির্ধারণ করা;
  • পণ্য ব্যবস্থাপনার জন্য বাজেট ও রোডম্যাপ তৈরি করা;
  • প্রতিদ্বন্দ্বী প্রতিষ্ঠানগুলোর পণ্য যাচাই করা;
  • বাজারে নিজের প্রতিষ্ঠানের পণ্যের চাহিদা সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহ করা;
  • পণ্যের মান যাচাইয়ের জন্য প্রয়োজনীয় মেট্রিক ঠিক করা;
  • পণ্য ব্যবস্থাপনার সাথে জড়িত প্রোডাকশন, সেলস ও মার্কেটিং দলের কর্মীদের কাজের সমন্বয় ঘটানো;
  • পণ্যের মার্কেটিং কীভাবে হবে, সে ব্যাপারে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নেয়া;
  • পণ্যের কাস্টমারদের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ রাখা;
  • নতুন কাস্টমারদের সাথে ব্যবসায়িক সম্পর্ক তৈরি করা;
  • পণ্যের অগ্রগতি সম্পর্কে নিয়মিত প্রতিবেদন তৈরি করা।

একজন প্রোডাক্ট ম্যানেজারের কী ধরনের যোগ্যতা থাকতে হয়?

শিক্ষাগত যোগ্যতাঃ অধিকাংশ কোম্পানিতে এ পদের জন্য ন্যূনতম ব্যাচেলর ডিগ্রি চাওয়া হয়। তবে কিছু কোম্পানিতে মাস্টার্স ডিগ্রির প্রয়োজন হতে পারে।

যেহেতু পণ্যের উন্নতি নিয়ে আপনি কাজ করবেন, সেহেতু ব্যবসা সংক্রান্ত ডিগ্রি থাকলে তা কাজে আসবে।

উল্লেখ্য যে, প্রোডাক্ট ম্যানেজার পদে কাজ পাবার জন্য শিক্ষাগত যোগ্যতার চেয়ে অভিজ্ঞতার গুরুত্ব বেশি।

সফটওয়্যার ও অ্যাপ্লিকেশন নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠানগুলোতে কম্পিউটার সায়েন্স ও ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে ডিগ্রি চাওয়া হতে পারে।

বয়সঃ প্রতিষ্ঠানসাপেক্ষে বয়সের সীমা আলাদা হয়।

অভিজ্ঞতাঃ এ পেশায় অভিজ্ঞদের প্রাধান্য দেয়া হয়। সাধারণত ৩-৫ বছরের অভিজ্ঞতা কাজে আসে।

একজন প্রোডাক্ট ম্যানেজারের কী ধরনের দক্ষতা ও জ্ঞান থাকতে হয়?

  • পণ্য ব্যবস্থাপনার উপর সম্যক জ্ঞান;
  • নতুন ব্যবসায়িক সুযোগ নির্ণয় করার ক্ষমতা;
  • খুঁটিনাটি বিষয় বিশ্লেষণ করার দক্ষতা;
  • বাংলা ও ইংরেজি – দুই ভাষাতেই ভালো যোগাযোগ করতে পারা;
  • কাস্টমারদের সাথে ভালো ব্যবসায়িক সম্পর্ক বজায় রাখার ক্ষমতা;
  • যে কারো সাথে সহযোগিতায় যেতে পারা;
  • আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে ভালো সিদ্ধান্ত নেবার দক্ষতা।

এ পেশায় টেকনিক্যাল দক্ষতা আবশ্যক নয়। তবে ব্যবসা সংক্রান্ত বিভিন্ন অ্যাপ্লিকেশন জানা দরকারি। যেমন, মাইক্রোসফট এক্সেল কিংবা কাস্টমার রিলেশনশিপ ম্যানেজমেন্ট (CRM) সফটওয়্যার।

একজন প্রোডাক্ট ম্যানেজারের মাসিক আয় কেমন?

মাসিক আয় কাজ ও প্রতিষ্ঠানসাপেক্ষ। গড়ে ৳৩৫,০০০ – ৳৪০,০০০ মাসিক বেতন উপার্জনের সুযোগ রয়েছে। অবশ্য বহু প্রতিষ্ঠানে পণ্য বা সার্ভিস বিক্রিতে আপনার ভূমিকার ভিত্তিতে লভ্যাংশ পেতে পারেন।

একজন প্রোডাক্ট ম্যানেজারের ক্যারিয়ার কেমন হতে পারে?

সাধারণত সেলস বা বিজনেস ডেভেলপমেন্ট বিভাগের এন্ট্রি লেভেলে আপনার কাজ শুরু হবে। সফটওয়্যার ও অ্যাপ কোম্পানিগুলোতে ডেভেলপার বা ইঞ্জিনিয়ার হিসাবেও অনেকের ক্যারিয়ার শুরু হয়।

এন্ট্রি লেভেলে ৩-৫ বছর কাজ করার অভিজ্ঞতা থাকলে প্রোডাক্ট ম্যানেজার হিসাবে নিযুক্ত হওয়া সম্ভব।

কেন নেবেন ক্যারিয়ার টেস্ট?

  • সরাসরি ইন্টারভিউর কল পেতে
  • সরাসরি চাকরির পরীক্ষা দিতে
  • চাকরি পরীক্ষার প্রস্তুতি নিতে
  • চাকরির জন্য দরকারি স্কিল অর্জন করতে
ক্যারিয়ার টেস্টে যান

Leave a Reply

আপনার নাম ও ইমেইল ঠিকানা দেয়া আবশ্যক। তবে মতামতের সাথে ইমেইল দেখানো হবে না।