বিজ্ঞাপনী সংস্থায় কাজ: কোথায় যোগ দেবেন?

বাংলাদেশের বিজ্ঞাপনী সংস্থায় কাজ - ক্যারিয়ারকী (CareerKi)

আপনি যদি নিজের সৃজনশীল দক্ষতাকে সবার সামনে তুলে ধরতে চান, তাহলে বিজ্ঞাপনী সংস্থায় কাজ করা অন্যতম সেরা নির্বাচন হতে পারে। অবশ্য এ ফিল্ডে কাজ করতে হলে আপনাকে শুধু শিল্পমনা হলেই চলবে না; বরং ক্লায়েন্টের চাহিদা অনুযায়ী যে পণ্য বা সার্ভিসের প্রচারণা চালাবেন, সে পণ্য বা সার্ভিস সম্পর্কে পরিষ্কার ধারণা রাখতে হবে। প্রচুর চাপের মধ্যেও ঠিক সময়ের মধ্যে কাজ শেষ করতে পারলে আরো ভালো।

এবারের লেখায় জেনে নিন বাংলাদেশের কোন বিজ্ঞাপনী সংস্থাগুলোতে আপনার কাজের সুযোগ রয়েছে।

অগিলভি অ্যান্ড ম্যাথার – বাংলাদেশ (Ogilvy and Mather)

বহুজাতিক নামকরা এ বিজ্ঞাপনী সংস্থা বাংলাদেশের স্থানীয় শাখার মাধ্যমে সার্ভিস দিয়ে থাকে।

অগিলভি অ্যান্ড ম্যাথারে কাজের সুযোগঃ সামগ্রিক ব্র্যান্ডিংয়ের উপর সংস্থাটি কাজ করে। কাজেই ডাটা অ্যানালিটিক্স থেকে শুরু করে গণসংযোগ – সব ধরনের কাজের সুযোগ পাবেন এখানে। তবে এর জন্য আধুনিক ব্র্যান্ডিংয়ের বিভিন্ন দিক সম্পর্কে ভালো জ্ঞান থাকা প্রয়োজন।

টিবিডব্লিউএ/বেঞ্চমার্ক (TBWA\Benchmark)

প্রতিষ্ঠান টিবিডব্লিউ ওয়ার্ল্ডওয়াইডের একটি অংশ। স্থানীয় বা আন্তর্জাতিক – যেকোন ব্র্যান্ডের সাথে এটি কাজ করে থাকে। গ্রামীণফোন, স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক, অ্যাপোলো হাসপাতাল, পিৎজা হাট আর কেএফসির মতো পরিচিত ব্র্যান্ড রয়েছে এর ক্লায়েন্ট তালিকায়।

টিবিডব্লিউএ/বেঞ্চমার্কে কাজের সুযোগঃ বিজ্ঞাপন, যোগাযোগ, ইভেন্ট ব্যবস্থাপনা আর মিডিয়া – টিবিডব্লিউএ/বেঞ্চমার্ক এ ক্ষেত্রগুলোর উপর জোর দেয়। শুধু স্পোর্টস মার্কেটিং নিয়ে তাদের আলাদা একটি শাখা রয়েছে, যা বাংলাদেশের বড় ক্রিকেটারদের নিয়ে কাজ করে। আপনি যদি খেলাধুলার ভক্ত হয়ে থাকেন, তাহলে এ ব্যাপারটি বিবেচনায় রাখতে পারেন।

গ্রে অ্যাডভার্টাইজিং (Grey Advertising)

২০১৪ সালের আইসিসি ট্রফির সময় ফ্ল্যাশ মব আমাদের দেশে খুব জনপ্রিয় হয়ে উঠেছিলো। এর পেছনে রয়েছে গ্রে অ্যাডভার্টাইজিংয়ের অবদান। অ্যাক্সেস টু ইনফরমেশন (a2i), কোকা-কোলা, সিপি (CP) বা গ্ল্যাক্সোস্মিথক্লাইনের (GSK) মতো ক্লায়েন্টের কাজ করেছে দেশের বিজ্ঞাপন ফিল্ডের বড় এ নাম।

গ্রে অ্যাডভার্টাইজিংয়ে কাজের সুযোগঃ অন্যান্য সব বিজ্ঞাপনী সংস্থার মতো গ্রে অ্যাডভার্টাইজিংও বিভিন্ন ক্ষেত্র নিয়ে কাজ করে থাকে। তবে শপিং নিয়ে তাদের বিশেষ সার্ভিস রয়েছে।

“thinkers, dreamers and innovators who can put ideas into motion that leads to results” – নিজেদের ওয়েবসাইটে পছন্দের কর্মীকে এভাবেই বর্ণনা করেছে তারা। যেকোন সময় আপনি নিজের সিভি জমা দিতে পারেন তাদের কাছে।

অন্য কোন কোন বিজ্ঞাপনী সংস্থায় কাজ করা যায়?

তুলনামূলকভাবে নতুন ও সম্পূর্ণ দেশী প্রতিষ্ঠানগুলো কাজ দিয়ে বিজ্ঞাপন জগতে জায়গা করে নিচ্ছে। যেমন, ব্র্যান্ডভেন্ট (BrandVent) তাদের ক্লায়েন্টদের জন্য সেলস ও ট্রেড মার্কেটিং ব্যবস্থাপনার দায়িত্ব নেয়।

আপনি যদি ডিজিটাল মার্কেটিং নিয়ে আগ্রহী হয়ে থাকেন, তাহলে ম্যাগনিটো ডিজিটাল (Magnito Digital) আপনার জন্য ভালো জায়গা হতে পারে। ডিজিটাল কন্টেন্ট ও ক্যাম্পেইনের জন্য তারা বেশ পরিচিত।

গ্রাফিক ডিজাইন নিয়ে কাজ করতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করলে জানালা বাংলাদেশে (Zanala Bangladesh) যোগ দেবার চেষ্টা করতে পারেন। তাদের ডিজাইন পোর্টফোলিওতে লোগো আর কার্ডসহ সব ধরনের ব্র্যান্ডিং উপকরণ রয়েছে।

আপনার ব্যক্তিগত পছন্দ কোনটি?

বিজ্ঞাপনী সংস্থায় কাজ করা একই সাথে চ্যালেঞ্জিং ও আকর্ষণীয় এক অভিজ্ঞতা। তবে কোন জায়গায় কাজ নেবার আগে এর ভালো-মন্দ দিকগুলো চিন্তা করে নেবেন। আর সবসময় নিজের দক্ষতাকে বাড়াতে থাকুন – সেটা শৈল্পিক হোক বা কল্পনাকে বাস্তব বিজ্ঞাপনে রূপ দেবার ক্ষমতা হোক!

Loading

Leave a Reply

আপনার নাম ও ইমেইল ঠিকানা দেয়া আবশ্যক। তবে মতামতের সাথে ইমেইল দেখানো হবে না।