বিসিএস তথ্য: তথ্য কর্মকর্তা বা সমমান

ক্যারিয়ার কন্টেন্ট - ক্যারিয়ারকী (CareerKi)

তথ্য অধিদপ্তর সরকারের একমাত্র নির্ভরযোগ্য সংবাদ উৎস হিসেবে সরকারি সংবাদ এবং ছবি, প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় প্রকাশের জন্য সরবরাহ করে থাকে তথ্য মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন অধিদপ্তরে কর্মকর্তা নিয়োগের জন্য বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস(BCS) এর তথ্য ক্যাডার পদ সৃষ্টি করা হয়েছে

সাধারণ পদবী:  তথ্য অফিসার/সহকারী বার্তা নিয়ন্ত্রক/সহকারী পরিচালক(অনুষ্ঠান)/গবেষণা কর্মকর্তা/ সহকারী বেতার প্রকৌশলী

বিভাগ:  তথ্য ও প্রযুক্তি

কর্মস্থলঃ  জেলা তথ্য অফিস, বাংলাদেশ বেতার, মন্ত্রণালয় ও গুরুত্বপূর্ণ দপ্তরের তথ্য অফিস, জাতীয় গণমাধ্যম ইন্সটিটিউট  

ক্যারিয়ারের ধরন: ফুল টাইম

লেভেল: এন্ট্রি

অভিজ্ঞতা: পূর্ব অভিজ্ঞতার প্রয়োজন নেই। বিসিএস (তথ্য) ক্যাডার হিসেবে উত্তীর্ণ হলে বাংলাদেশ লোক প্রশাসন প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে ৬ মাসের প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। জাতীয় গণমাধ্যম ইন্সটিটিউটে বিভাগীয় প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়।

বেতন সীমা: জাতীয় বেতন স্কেলের নবম গ্রেড অনুযায়ী মূল বেতন ২২ হাজার টাকা। কর্মস্থল অনুযায়ী বাড়ি ভাড়া ও অন্যান্য ভাতা মিলিয়ে শুরুতে মাসিক বেতন ৩২-৩৭ হাজার টাকা।

বয়স সীমা:  বিসিএস সার্কুলার যে মাসে দেওয়া হবে সে মাসের প্রথম দিন একজন প্রার্থীর বয়স ২১-৩০ এর মধ্যে হতে হবে। তবে মুক্তিযোদ্ধা সনদধারী ব্যক্তিদের সন্তান, পৌত্র-পৌত্রী ও স্বাস্থ্য ক্যাডারদের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ বয়সসীমা ৩২ বছর। আদিবাসী প্রার্থীদের জন্য সর্বোচ্চ বয়সসীমা ৩২ বছর 

মূল স্কিল: সংশ্লিষ্ট পদ অর্থাৎ প্রকৌশল/অনুষ্ঠান পরিচালনা/গবেষনা/বার্তা নিয়ন্ত্রণ অথবা প্রশাসনিক কাজে দক্ষ হতে হবে

বিশেষ স্কিল:  নেতৃত্ব দেবার ও পরিচালনা করবার দক্ষতা থাকতে হবে, সৃজনশীল হতে হবে, নির্ভুলভাবে কাজে পারদর্শী হতে হবে

একজন তথ্য ক্যাডার কোন ধরনের প্রতিষ্ঠান বা শিল্পে কাজ করেন?

একজন তথ্য ক্যাডার গণযোগাযোগ অধিদপ্তরের অধীনে জেলা তথ্য অফিস এবং তথ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনে জাতীয় গণমাধ্যম ইন্সটিটিউট অথবা বাংলাদেশে বেতারে কাজ করেন। প্রেষণে অনেক সময় বাংলাদেশ টেলিভিশনেও কাজের সুযোগ রয়েছে। যদিও বাংলাদেশে টেলিভিশনে তথ্য ক্যাডারদের কোন নির্দিষ্ট পদ নেই। এছাড়া একজন তথ্য ক্যাডার বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের তথ্য অফিসেও কাজের সুযোগ পান।

একজন তথ্য ক্যাডার কী ধরনের কাজ করেন?

পদ অনুযায়ী একজন তথ্য ক্যাডারের কাজ ভিন্ন হতে পারে। বাংলাদেশ বেতারে সহকারী প্রকৌশলী হিসেবে নিয়োগপ্রাপ্তরা বেতারের প্রকৌশল বিভাগে কাজ করেন। বাংলাদেশ বেতারে বার্তা বিভাগে সহকারী বার্তা নিয়ন্ত্রক সংবাদ প্রচার সহ সংশ্লিষ্ট অন্যান্য কাজ করে থাকেন। সহকারী অনুষ্ঠান পরিচালক অনুষ্ঠান পরিচালনা ও প্রচার সংশ্লিষ্ট কাজে নিয়োজিত থাকেন।

গণযোগাযোগ অধিদপ্তরের অধীনে তথ্য অফিসে জেলা তথ্য কর্মকর্তা অফিসের প্রধান হিসেবে কাজ করেন। তিনি অফিসের প্রসাশনিক দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি সরকারের গৃহীত নীতিমালা ও উন্নয়ন কর্মসূচির সাথে জনগণকে সম্পৃক্ত করার লক্ষ্যে বিভিন্ন সভা, সেমিনার, আলোচনা সভা, সংগীতানুষ্ঠান ও সিনেমা প্রদর্শনের ব্যবস্থা করেন।  বিভিন্ন সরকারি বিজ্ঞপ্তি, কর্মসূচী, এজেন্ডা প্রচারের পাশাপাশি জনসচেতনতামূলক প্রচার, গুজব-ভুল-বিভ্রান্তি দূরীকরণে সঠিক তথ্য প্রচারের উদ্যোগ নিয়ে থাকেন। এছাড়া কোন ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান, দফতর থেকে যে কোন সরকারি তথ্যের জন্য আবেদন করা হলে তথ্য আইনের আওতায় জেলা তথ্য অফিসারকে তথ্য প্রদানের যথাযথ ব্যবস্থা নিতে হবে।

তথ্য অধিদপ্তরের বিভিন্ন শাখা যেমন প্রেস শাখা, প্রশাসন শাখা, রিসার্চ এন্ড রেফারেন্স শাখা, ফিচার শাখায় প্রশাসনিক কর্মকর্তা বা গবেষণা কর্মকর্তা হিসেবে কাজ করে থাকেন একজন তথ্য ক্যাডার।

এছাড়া বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, গুরুত্বপূর্ন দপ্তরে কর্মরত তথ্য অফিসাররা সংশ্লিষ্ট দফতরের গৃহীত সিদ্ধান্ত, কার্যক্রম, নীতিমালা, বিজ্ঞপ্তি ইত্যাদি তথ্য প্রচারের দায়িত্বে থাকেন।

একজন তথ্য ক্যাডারের শিক্ষাগত যোগ্যতা কী?

তথ্য ক্যাডারে সাধারণ ও প্রফেশনাল উভয় পদে কাজের সুযোগ আছে।

তথ্য অফিসার/সহকারী বার্তা নিয়ন্ত্রক/সহকারী পরিচালক(অনুষ্ঠান)/গবেষণা কর্মকর্তা হিসেবে কাজের জন্য যে কোন স্বীকৃত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে যে কোন বিষয়ে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অথবা ৪ বছর মেয়াদী স্নাতক ডিগ্রি থাকতে হবে। তবে শিক্ষা জীবনের যে কোন ধাপে ( মাধ্যমিক, উচ্চমাধ্যমিক, স্নাতক ) একটির বেশি তৃতীয় বিভাগ থাকলে আবেদনের জন্য অযোগ্য হিসেবে বিবেচিত হবে।

সহকারী বেতার প্রকৌশলী তথ্য ক্যাডারের একটি প্রফেশনাল পদ। এ পদের জন্য ফলিত পদার্থ বিজ্ঞান এ স্নাতকোত্তর ডিগ্রি থাকতে হবে। তবে স্নাতক/স্নাতকোত্তর এ তৃতীয় বিভাগ থাকলে আবেদনের সুযোগ পাওয়া যাবেনা। অথবা ইলেকট্রিক্যাল/ইলেকট্রনিকস/মাইক্রোওয়েভ ইঞ্জিনিয়ারিং এ ৪ বছর মেয়াদী বিএসসি ইঞ্জিনিয়ারিং ডিগ্রি থাকতে হবে

একজন তথ্য ক্যাডারের কী কী দক্ষতা ও জ্ঞান থাকতে হয়?

একজন তথ্য ক্যাডারের অবশ্যই তার কাজ ও পদ সংলিষ্ট জ্ঞান থাকতে হবে। বেতারে প্রকৌশলী হিসেবে কাজের জন্য বেতার তরঙ্গ সংলিষ্ট তাত্ত্বিক জ্ঞান ও প্রকৌশল কাজের দক্ষতা থাকতে হবে। বেতারে বার্তা নিয়ন্ত্রক সহকারী বা সহকারী পরিচালক(অনুষ্ঠান) হিসেবে কাজের জন্য অবশ্যই নেতৃত্ব দেবার দক্ষতা থাকতে হবে, কাজে সৃজনশীলতার পরিচয় দিতে হবে, কাজে হতে হবে নির্ভুল। যে কোন প্রকার তথ্যের সত্যতা যাচাই করে তবেই তা প্রচার করতে হবে।

জেলা তথ্য অফিসার কিংবা অন্য কোন দফতরে সহকারী পরিচালক হিসেবে কাজের জন্য অবশ্যই প্রশাসনিক কাজে দক্ষ হতে হবে। সরকারি নথি-পত্র পরীক্ষণ ও বিভিন্ন বিজ্ঞপ্তি তৈরি করার পর্যাপ্ত জ্ঞান থাকতে হবে। একজন জেলা তথ্য অফিসারকে সরকারি বিভিন্ন এজেন্ডা ও জনসচেতানতামূলক প্রচারের জন্য উদ্যোগী হতে হবে।

একজন তথ্য ক্যাডারের কাজের ক্ষেত্র ও সুযোগ কেমন?

এ ক্যাডারের কর্মকর্তারা একাধিক দফতরে কাজের সুযোগ পান বলএ প্রায় প্রতি বিসিএস পরীক্ষার সার্কুলারে তথ্য ক্যাডার পদের জন্য বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়। সর্বশেষ ৩৮ তম বিসিএস বিজ্ঞপ্তিতে সহকারী পরিচালক/তথ্য অফিসার/গবেষণা কর্মকর্তা হিসেবে মাত্র ১ জন আর বাংলাদেশ বেতারে সহকারী পরিচালক( অনুষ্ঠান) পদের জন্য ৯ জন ও সহকারী বার্তা নিয়ন্ত্রক হিসেবে ১৪ জনের জন্য বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়েছে। এ বিসিএস এ বেতারের সহকারী প্রকৌশলী পদের জন্য কোন বিজ্ঞাপন দেওয়া হয়নি। তবে ৩৭ তম বিসিএস পরীক্ষায় ৮ জন সহকারী বেতার প্রকৌশলী পদের জন্য বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়েছিল।  তথ্য ক্যাডাররা তথ্য অধিদপ্তর, গণযোগাযোগ অধিদপ্তর, বাংলাদেশ বেতার, জাতীয় গণমাধ্যম ইন্সটিটিউট ছাড়াও বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ে মাননীয় মন্ত্রীগণের Public Relations officer (PRO), বিদেশে কয়েকটি দূতাবাসে তথ্য কর্মকর্তা, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও মহামান্য রাষ্ট্রপতির অফিসেও তথ্য কর্মকর্তা হতে পারেন। এছাড়াও প্রেষণে বাংলাদেশ টেলিভিশনেও অনেকে কাজ করেন।

একজন তথ্য ক্যাডারের মাসিক আয় কেমন?

কর্মজীবনের শুরুতে একজন তথ্য ক্যাডার জাতীয় বেতন স্কেল-২০১৫ এর গ্রেড ৯ অনুযায়ী কর্মস্থলভেদে ৩২-৩৭ হাজার টাকা মাসিক বেতন পান। এ গ্রেডে সর্বোচ্চ বেতন ৫৩ হাজার টাকা।

ক্যারিয়ার কেমন হতে পারে একজন তথ্য ক্যাডারের?

বাংলাদেশ বেতারে অনুষ্ঠান বিভাগে সহকারী পরিচালক হিসেবে কাজ শুরু করে পদোন্নতির মাধ্যমে যথাক্রমে উপ আঞ্চলিক পরিচালক, আঞ্চলিক পরিচালক হিসেবে আঞ্চলিক অফিসে কাজ করে পদ খালি থাকা সাপেক্ষে পরিচালক ও উপ-পরিচালক(অনুষ্ঠান) হবার সুযোগ থাকে।

বার্তা বিভাগে সহকারী বার্তা নিয়ন্ত্রক, উপ বার্তা নিয়ন্ত্রক, আঞ্চলিক বার্তা নিয়ন্ত্রক, বার্তা নিয়ন্ত্রক এবং বার্তা বিভাগের প্রধান উপ-মহাপরিচালক(বার্তা) হবার সুযোগ আছে।

প্রকৌশল বিভাগে শুরুতে সহকারী বেতার প্রকৌশলী এর পর উপ আঞ্চলিক প্রকৌশলী, আঞ্চলিক প্রকৌশলী, সিনিয়র প্রকৌশলী, অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী এবং প্রকৌশল বিভাগের প্রধান প্রধান প্রকৌশলী পরিচালক হবার সুযোগ থাকে। এবং এর পর পদ খালি থাকা সাপেক্ষে এবং দক্ষতা ও অন্যান্য গুণাবলীর বলে বাংলাদেশ বেতারের মহাপরিচালক হবার সুযোগ থাকে যা গ্রেড-২ এর পদ।

এছাড়া গণযোগাযোগ অধিদপ্তর, তথ্য অধিদপ্তর, জাতীয় গণমাধ্যম ইন্সটিটিউতে শুরুতে সহকারী পরিচালক/জেলা তথ্য অফিসার/গবেষণা কর্মকর্তা হিসেবে কাজ করতে হয়। এ ক্যাডারের কর্মকর্তারা উক্ত অধিদপ্তর সমূহের উপপরিচালক, পরিচালক, অতিরিক্ত মহাপরিচালক/অতিরিক্ত প্রধান তথ্য কর্মকর্তা এবং ক্যারিয়ারের শীর্ষে মহাপরিচালক বা তথ্য অধিদপ্তরের প্রধান তথ্য কর্মকর্তা হবার সুযোগ পান।

 

Loading

Leave a Reply

আপনার নাম ও ইমেইল ঠিকানা দেয়া আবশ্যক। তবে মতামতের সাথে ইমেইল দেখানো হবে না।