বিসিএস নিরীক্ষা ও হিসাব: সহকারী মহা-হিসাব রক্ষক

ক্যারিয়ার কন্টেন্ট - ক্যারিয়ারকী (CareerKi)

বাংলাদেশে বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠানের বার্ষিক আয়-ব্যয়ের হিসাবসহ অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডের নিরীক্ষা চালানোর জন্য বিসিএস নিরীক্ষা ও হিসাব ক্যাডারের কর্মকর্তারা নিয়োজিত থাকেন। কর আদায় ও বার্ষিক আয়-ব্যয়ের ক্ষেত্রে কোন ধরনের অনিয়ম আছে কিনা কিংবা কোন ধরনের অস্বাভাবিকতা আছে কিনা তা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে তারা কাজ করে থাকেন।

এক নজরে বিসিএস নিরীক্ষা ও হিসাব ক্যাডার

এন্ট্রি লেভেলে সাধারণ পদবী: সহকারী মহা-হিসাব রক্ষক
বিভাগ: পাবলিক সার্ভিস
প্রতিষ্ঠানের ধরন: সরকারি
ক্যারিয়ারের ধরন: ফুল-টাইম
এন্ট্রি লেভেলে সম্ভাব্য অভিজ্ঞতা সীমা: ০ বছর
এন্ট্রি লেভেলে সম্ভাব্য মূল বেতন: ৳২২,০০০ (জাতীয় বেতন স্কেলের নবম গ্রেড)
এন্ট্রি লেভেলে সম্ভাব্য বয়স: ২১ – ৩০ বছর
মূল স্কিল: গণিত, হিসাববিজ্ঞান, পরিসংখ্যান, ফিন্যান্স, ম্যানেজমেন্ট
বিশেষ স্কিল: নির্ভুল হিসাবের দক্ষতা, সূক্ষ্ম পর্যবেক্ষণ ক্ষমতা

বিসিএস নিরীক্ষা ও হিসাব ক্যাডারের কাজ সম্পর্কিত প্রশ্ন

বিসিএস নিরীক্ষা ও হিসাব ক্যাডারে নিয়োগপ্রাপ্ত একজন কর্মকর্তা কোথায় কাজ করেন?

অডিট অ্যান্ড অ্যাকাউন্টস সার্ভিসের কর্মকর্তাদের মহা-হিসাব নিরীক্ষক ও নিয়ন্ত্রকের কার্যালয়ের অধীনে বেশ কয়েকটি ডিরেক্টরেট বা পরিদপ্তরে নিয়োগ দেয়া হয়। এগুলো হলো –

  • কমার্শিয়াল অডিট ডিরেক্টরেট: এখানে সরকারি প্রতিষ্ঠান, সরকার নিয়ন্ত্রিত বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান, রাষ্ট্রায়ত্ত বাণিজ্যিক ব্যাংক, আধা-সরকারি প্রতিষ্ঠান এবং পাবলিক হোল্ডিং প্রতিষ্ঠানগুলোর বাজেট প্রণয়ন ও বাস্তবায়ন নিরীক্ষার কাজ সম্পাদন করা হয়।
  • লোকাল অ্যান্ড রেভিনিউ অডিট ডিরেক্টরেট: এ পরিদপ্তরে সাধারণত জাতীয় রাজস্ব বোর্ড, সিটি কর্পোরেশন, বিশ্ববিদ্যালয়, পৌরসভা এবং সকল স্থানীয় ও বেসামরিক সরকারি প্রতিষ্ঠানের বাজেট প্রণয়ন ও বাস্তবায়নের কাজ নিরীক্ষা করা হয়।
  • সিভিল অডিট ডিরেক্টরেট: এ পরিদপ্তরের অধীনে দেশের উপজেলাগুলোর হিসাব বা অ্যাকাউন্টস অফিস, জেলাগুলোর অ্যাকাউন্টস অফিস, প্রধান হিসাব কর্মকর্তা বা চীফ অ্যাকাউন্টস অফিসারদের কার্যালয়, অ্যাকাউন্টস মহা হিসাব নিয়ন্ত্রকের কার্যালয় এবং বিভাগীয় অফিসগুলো অন্তর্ভুক্ত। সাধারণত উপজেলা পর্যায় থেকে শুরু করে বিভাগীয় পর্যায় পর্যন্ত সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোর বাজেট প্রণয়ন, বাস্তবায়ন ও নিয়মবহির্ভূত ব্যয় নির্ণয়ের কাজ করে থাকে এ পরিদপ্তর।
  • ওয়ার্কস অডিট ডিরেক্টরেট: গণপূর্ত, সড়ক ও জনপথ, পানি উন্নয়ন বোর্ড, বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড, ওয়াসা, ডেসা, বেসামরিক বিমান পরিবহন, স্থানীয় সরকার প্রকৌশলসহ বাংলাদেশ সরকারের প্রকৌশলভিত্তিক প্রতিষ্ঠানগুলোর অডিটের কাজ সম্পন্ন করেন এ পরিদপ্তরের কর্মকর্তারা।
  • ফরেইন এইডেড প্রজেক্ট অডিট ডিরেক্টরেট: সরকারি খাতে বৈদেশিক অনুদান দ্বারা পরিচালিত উন্নয়ন সহায়তা প্রজেক্টগুলোর অডিট সম্পন্ন করা এ পরিদপ্তরের কাজ।
  • রেলওয়ে অডিট ডিরেক্টরেট: এ পরিদপ্তরের কাজ বাংলাদেশ রেলওয়ের অডিট সম্পন্ন করা।
  • পোস্ট, টেলিযোগাযোগ, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি অডিট ডিরেক্টরেট: বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন কোম্পানি লিমিটেড, বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ রেগুলেটরি কমিশন এবং ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের বাজেট ও আয়-ব্যয়ের নিরীক্ষা সম্পন্ন করে এ পরিদপ্তর।
  • ডিফেন্স অডিট ডিরেক্টরেট: বাংলাদেশের সব প্রতিরক্ষা বাহিনী, বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর, বাংলাদেশ ভূতাত্ত্বিক অধিদপ্তর প্রভৃতি প্রতিষ্ঠানের বাজেট বাস্তবায়ন নিরীক্ষার কাজ সম্পাদন করেন এ পরিদপ্তরের কর্মকর্তারা।
  • মিশন অডিট ডিরেক্টরেট: বিদেশে অবস্থিত বাংলাদেশ সরকার সব প্রতিষ্ঠানের বাজেট বাস্তবায়ন নিরীক্ষার কাজ সম্পন্ন করে এ পরিদপ্তর।
  • পারফরম্যান্স অডিট ডিরেক্টরেট: কিছু নির্দিষ্ট প্রতিষ্ঠানের সম্পাদিত কাজ ও এর মান বাজেটের সাথে তুলনার মাধ্যমে নিরীক্ষা করা এ পরিদপ্তরের কাজ।

এর বাইরে উপজেলা ও জেলা পর্যায়ে হিসাবরক্ষণ কার্যালয় আর প্রধান হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তার কার্যালয়ে একজন সহকারী মহা-হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তাকে নিয়োগ দেয়া হতে পারে।

উপজেলা পর্যায়ে একই পদবীর পদকে উপজেলা হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা বলা হয়। আবার মহা হিসাব নিয়ন্ত্রকের কার্যালয়ে আপনাকে অডিট অ্যান্ড অ্যাকাউন্টস অফিসার হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হবে।

বিসিএস নিরীক্ষা ও হিসাব ক্যাডারে নিয়োগপ্রাপ্ত একজন কর্মকর্তা কী ধরনের কাজ করেন?

  • অফিসের রেকর্ড বা তথ্য সংরক্ষণে নিয়মিত মাসিক হিসাব ইনপুট দেয়া;
  • ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের কেউ হিসাব সংরক্ষণের ক্ষেত্রে সমস্যার ব্যাপারে অবগত করলে তা ঠিক করা;
  • সরকারি প্রতিষ্ঠানের আয়-ব্যয়ের হিসাব ঠিক আছে কি না, তা নিশ্চিত করা;
  • পেনশন বা অন্য কোন ধরনের হিসাব প্রদান বাকি থাকলে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সাথে আলোচনার মাধ্যমে তা সময়মতো পরিশোধ করা এবং নিরীক্ষা বা অডিটের পূর্বেই সব হিসাব ঠিক আছে কি না, তা নিশ্চিত করা;
  • অধীনস্থ কর্মচারী ও কর্মকর্তাদের মাসিক বেতন ও অন্যান্য হিসাব পরিশোধ করা। এর পাশাপাশি তাদের ঐচ্ছিক ছুটিসহ অন্যান্য সুযোগ-সুবিধার ব্যাপারে খেয়াল রাখা;
  • প্রতিষ্ঠানের মাঠ পর্যায়ের কাজ ও তথ্য সংগ্রহের তদারকি করা;
  • অধীনস্ত কর্মচারীদের বার্ষিক বেতন বৃদ্ধির ব্যাপারে সুপারিশ করা;
  • প্রতিষ্ঠানের আওতাধীন সকল প্রতিষ্ঠানের হিসাব সংগ্রহ, নিয়ন্ত্রণ ও পরবর্তীতে নিরীক্ষার জন্য মহা হিসাব নিরীক্ষক ও নিয়ন্ত্রক এবং তার কার্যালয়ের কর্মকর্তাদের সহায়তা করা;
  • নিজ প্রতিষ্ঠানের সামগ্রিক আয়-ব্যয়ের হিসাব রাখা;
  • নিজ প্রতিষ্ঠানের অডিট বা নিরীক্ষার কাজে প্রতিষ্ঠানের যথাযথ নিয়ম মেনে পক্ষ সমর্থনের কাজ সম্পাদন করা।

বিসিএস নিরীক্ষা ও হিসাব ক্যাডারে নিয়োগ পাবার পদ্ধতি কী?

অডিট অ্যান্ড অ্যাকাউন্টস সার্ভিসে নিয়োগের ক্ষেত্রে আপনাকে –

  • বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় (২০০ নম্বরের পরীক্ষা) উত্তীর্ণ হতে হবে;
  • বিসিএস লিখিত পরীক্ষার (৯০০ নম্বরের পরীক্ষা) জন্য বসতে হবে;
  • সরাসরি মৌখিক পরীক্ষায় (২০০ নম্বরের পরীক্ষা) ভালো ফলাফল করতে হবে।

উল্লেখ্য যে, মৌখিক পরীক্ষার পর চূড়ান্ত ফলাফলে কোন প্রার্থী কোন ক্যাডার পেয়েছেন অথবা নন-ক্যাডার চাকরির জন্য বিবেচ্য হয়েছেন, তার উপরও আপনার পছন্দের ক্যাডারে নিয়োগ পাওয়া নির্ভর করে।

বিসিএস নিরীক্ষা ও হিসাব ক্যাডারে নিয়োগপ্রাপ্ত একজন কর্মকর্তার কী ধরনের যোগ্যতা থাকতে হয়?

এ ক্যাডারে নিয়োগ পাবার জন্য ন্যূনতম যোগ্যতা অন্যান্য সব ক্যাডারের মতো বাংলাদেশ পাবলিক সার্ভিস কমিশন দ্বারা নির্ধারিত।

বিসিএস নিরীক্ষা ও হিসাব ক্যাডারে নিয়োগপ্রাপ্ত একজন কর্মকর্তার কী ধরনের দক্ষতা ও জ্ঞান থাকতে হয়?

  • নিরীক্ষার জন্য প্রয়োজনীয় গাণিতিক হিসাব করার দক্ষতা;
  • পরিসংখ্যানভিত্তিক জ্ঞান;
  • বিশ্লেষণী ক্ষমতা;
  • মাইক্রোসফট এক্সেলসহ হিসাব সংরক্ষণ ও ডাটা অ্যানালিসিসের সফটওয়্যারে পারদর্শিতা;
  • মানসিক চাপ সামলানোর ক্ষমতা;
  • ধৈর্য;
  • খুঁটিনাটি বিষয়ে মনোযোগ দেবার দক্ষতা;
  • বিচক্ষণতা ও কৌশলী মনোভাবের অধিকারী হওয়া।

বিসিএস নিরীক্ষা ও হিসাব ক্যাডারে নিয়োগপ্রাপ্ত একজন কর্মকর্তার মাসিক আয় কেমন?

৯ম পে স্কেল অনুসারে একজন সহকারী মহা-হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তার বেতন মাসিক ৳২২,০০০ টাকা। এর পাশাপাশি ডিরেক্টরেট কর্তৃক অর্পিত দায়িত্ব অথবা কাজের উপর নির্ভর করে কিছু পরিমাণ অতিরিক্ত মাসিক সম্মানী বরাদ্দ থাকতে পারে।

বিসিএস নিরীক্ষা ও হিসাব ক্যাডারে নিয়োগপ্রাপ্ত একজন কর্মকর্তার ক্যারিয়ার কেমন হতে পারে?

সহকারী মহা-হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা হিসাবে আপনার ক্যারিয়ার শুরু হবে। সাধারণত ক্যারিয়ারের ধাপগুলো হলো –

  • সহকারী প্রধান হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা/উপজেলা হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা/অডিট অ্যান্ড অ্যাকাউন্টস অফিসার/প্রোগ্রামার
  • উপপ্রধান হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা/জেলা হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা/উপবিভাগীয় হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা/উপ হিসাব মহানিয়ন্ত্রক/সিস্টেম অ্যানালিস্ট
  • প্রধান হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা/বিভাগীয় হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা/অতিরিক্ত হিসাব মহানিয়ন্ত্রক/সিনিয়র সিস্টেম অ্যানালিস্ট
  • হিসাব মহানিয়ন্ত্রক

মহা হিসাব নিরীক্ষক ও নিয়ন্ত্রকের কার্যালয়ের ক্ষেত্রে পদোন্নতির বিন্যাস একটু আলাদা। অডিট অ্যান্ড অ্যাকাউন্টস ক্যাডার থেকে উপসচিব হিসেবে পদোন্নতির মাধ্যমে সচিব পদমর্যাদা পর্যন্ত অধিষ্ঠিত হওয়া যায়।

উল্লেখ্য যে, অন্যান যেকোন সরকারি চাকরির মতো এ খাতে আপনার পদোন্নতি নির্ভর করবে খালি পদের সংখ্যা, সরকারি সিদ্ধান্ত ও কাজের পারফরম্যান্সের উপর।

বিসিএস মক টেস্ট দিন

এটি পূর্ণাঙ্গ কোন টেস্ট নয়। কিন্তু আপনার বিসিএস প্রস্তুতি কিছুটা হলেও যাচাই করতে পারবেন এ টেস্টের মাধ্যমে।

টেস্টে যান

কেন নেবেন ক্যারিয়ার টেস্ট?

  • সরাসরি ইন্টারভিউর কল পেতে
  • সরাসরি চাকরির পরীক্ষা দিতে
  • চাকরি পরীক্ষার প্রস্তুতি নিতে
  • চাকরির জন্য দরকারি স্কিল অর্জন করতে
ক্যারিয়ার টেস্টে যান

Leave a Reply

আপনার নাম ও ইমেইল ঠিকানা দেয়া আবশ্যক। তবে মতামতের সাথে ইমেইল দেখানো হবে না।