মিডওয়াইফ

মিডওয়াইফ বা ধাত্রী: ক্যারিয়ার প্রোফাইল - ক্যারিয়ারকী (CareerKi)

একজন মিডওয়াইফ বা ধাত্রী গর্ভাবস্থায়, প্রসব বেদনা এবং প্রসবের প্রারম্ভিক অবস্থায় নারী এবং শিশুদের পরামর্শ, যত্ন এবং সহায়তা প্রদান করেন। তিনি গর্ভাবস্থার সময়ে নারীদেরকে তাদের তত্ত্বাবধানে রেখে বিভিন্ন স্বাস্থ্য সেবা সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নিতে সাহায্য করেন এবং স্বাস্থ্য ও শিশুর পরিচর্যা বিষয়ক উপদেশ প্রদান করেন।

একজন মিডওয়াইফ মা এবং সন্তান উভয়ের স্বাস্থ্যের জন্য ব্যক্তিগতভাবে দায়বদ্ধ এবং গর্ভাবস্থা বা জন্মকালীন মেডিক্যাল জটিলতা দেখা দিলে গাইনি ডাক্তার দেখানোর জন্য পরামর্শ দেন। একজন মিডওয়াইফ হাসপাতাল এবং কমিউনিটি স্বাস্থ্যকেন্দ্রে সেবা দিয়ে থাকেন।

এক নজরে একজন মিডওয়াইফ

সাধারণ পদবী: মিডওয়াইফ
বিভাগ: স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা
প্রতিষ্ঠানের ধরন: সরকারি, বেসরকারি অধিদপ্তর, হাসপাতাল ও স্বাস্থ্য কেন্দ্র, প্রাইভেট প্র্যাক্টিস
ক্যারিয়ারের ধরন: পার্ট-টাইম, ফুল টাইম
লেভেল: এন্ট্রি, মিড
অভিজ্ঞতা সীমা: কাজ ও প্রতিষ্ঠানসাপেক্ষ
সম্ভাব্য বেতনসীমা: ৳১৬,০০০-৩৮,০০০ – কাজ, প্রতিষ্ঠান ও অভিজ্ঞতাসাপেক্ষ
সম্ভাব্য বয়সসীমা: কাজসাপেক্ষ
মূল স্কিল: ধাত্রীবিদ্যা
বিশেষ স্কিল: যে কোন পরিস্থিতিতে কাজ করার ক্ষমতা

কোন ধরণের শিল্প বা ইন্ডাস্ট্রিতে একজন মিডওয়াইফ কাজ করেন?

  • হাসপাতাল;
  • কমিউনিটি ক্লিনিক;
  • সেবা অধিদপ্তর;
  • স্বাস্থ্য ও সেবা মন্ত্রনালয়।

একজন মিডওয়াইফ কী ধরনের কাজ করেন?

  • গর্ভাবস্থায় নারীর পরীক্ষা নিরীক্ষা সম্পন্ন করা;
  • রোগ প্রতিরোধ, স্বাভাবিক প্রসবের জন্য মাকে প্রস্তুত এবং মা ও শিশুর জটিলতা নির্ণয় করে চিকিৎসাসেবার ব্যবস্থা করা;
  • গর্ভবতী নারীর জন্য কেয়ার প্রোগ্রাম তৈরি করা ও তা মূল্যায়ন করা;
  • হাসপাতালে এবং বাড়িতে গর্ভবতী নারীকে স্ক্রিনিং পরীক্ষাসহ পূর্ণ জন্মগত যত্ন প্রদান করা;
  • উচ্চ ঝুঁকিযুক্ত গর্ভধারণ সনাক্ত করে এবং ডাক্তার এবং অন্যান্য চিকিৎসা বিশেষজ্ঞদের সাথে এ সম্পর্কে যোগাযোগ করা;
  • স্বাস্থ্যসচেতনতা বৃদ্ধি ও কাউন্সেলিং;
  • স্ক্রিনিং ও পরীক্ষাসমূহের আগে এবং পরে কাউন্সেলিং;
  • গর্ভপাত, নবজাতকের অস্বাভাবিকতা এবং নবজাতকের মৃত্যু সম্পর্কিত ঘটনাবলীতে পূর্ণ মানসিক ও প্রফেশনাল সহায়তা প্রদান;
  • মাতৃগর্ভের তত্ত্বাবধান এবং সহায়তা, ভ্রূণের অবস্থার নিরীক্ষণ এবং ওষুধ এবং ব্যথা পরিচালনার জ্ঞান প্রয়োগ করা;
  • শিশুটির দৈনিক যত্ন যেমন বুকের দুধ খাওয়ানো সহ স্নান করানো, খাবার তৈরি করা ইত্যাদি বিষয়ক সহায়তা এবং পরামর্শ প্রদান;
  • জুনিয়র সহকর্মীদের প্রশিক্ষণ এবং তত্ত্বাবধানে অংশগ্রহণ।

একজন মিডওয়াইফের কী ধরনের দক্ষতা ও জ্ঞান থাকতে হয়?

  • ডিপ্লোমা ইন মিডওয়াইফারি কোর্স;
  • শিশু জন্ম বিষয়ক জ্ঞান;
  • গর্ভাবস্থা বিষয়ক জ্ঞান;
  • গর্ভাবস্থায় ও শিশুর জন্ম পরবর্তীকালে মায়ের যত্নে দক্ষতা;
  • পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার প্রতি বিশেষভাবে লক্ষ্য রাখা;
  • সহযোগিতামূলক মনোভাব;
  • জরুরি অবস্থায় ঠাণ্ডা মাথায় কাজ করার ক্ষমতা;
  • যোগাযোগ সম্পর্কিত দক্ষতা।

কোথায় পড়বেন মিডওয়াইফারি?

  • সরকারী নার্সিং কলেজ;
  • নার্সিং ইন্সটিটিউট;
  • মিডওয়াইফারি ইন্সটিটিউট।

বাংলাদেশ সরকার বিভিন্ন জেলায় ৩১টি সরকারি নার্সিং কলেজ ও নার্সিং ইনস্টিটিউটে ডিপ্লোমা এবং ব্যাচেলর ইন মিডওয়াইফারি কোর্স চালু করেছে। এসব প্রতিষ্ঠান থেকে ৩ বছর মেয়াদি ডিপ্লোমা কোর্স করে আপনি এই পেশায় যোগ দিতে পারবেন। এছাড়া উচ্চশিক্ষা ও প্রশিক্ষণের মাধ্যমে কর্মক্ষেত্রে দক্ষতা বাড়ানোর সুযোগ রয়েছে। দেশের বাইরেও এই পেশায় প্রচুর সম্ভাবনা রয়েছে।

একজন মিডওয়াইফের কাজের ক্ষেত্র এবং সুযোগ কেমন?

বিভিন্ন সরকারি হাসপাতাল ও স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্রে একজন মিডওয়াইফ কাজ করতে পারেন। তাছাড়া সরকারী অধিদপ্তরে এই পেশায় প্রচুর কর্মী নিয়োগ করা হচ্ছে। স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে সরকারের বিভিন্ন পদক্ষেপের কারণে এই পেশায় প্রশিক্ষিত কর্মীর চাহিদা প্রতিনিয়ত বাড়ছে।

একজন মিডওয়াইফের মাসিক আয় কেমন?

সরকারী অধিদপ্তরে নন ক্যাডার পদে এ পেশায় নিয়োগ করা হয়। জাতীয় বেতন স্কেল অনুযায়ী এই পেশায় বেতন ১৬০০০ টাকা থেকে শুরু হয়ে ৩৮৬৪০ টাকা পর্যন্ত হতে পারে, এছাড়াও রয়েছে অন্যান্য সুযোগ সুবিধা।

ক্যারিয়ার কেমন হতে পারে একজন মিডওয়াইফের?

বাংলাদেশ সরকার মাতৃস্বাস্থ্যসেবা জোরদার করা ও মাতৃমৃত্যু কমিয়ে আনার লক্ষ্যে বিপুল পরিমাণে মিডওয়াইফ পেশায় প্রশিক্ষিত প্রার্থী নিয়োগ দিচ্ছে। প্রয়োজনীয় প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ থাকলে এই মহান পেশায় যোগদান করে ভালো ক্যারিয়ার গড়ে তুলতে পারেন আপনিও। এই পেশায় সরকারী খাতে ভালো অঙ্কের বেতন ছাড়াও রয়েছে বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা। এছাড়া দেশে ও দেশের বাইরে উচ্চশিক্ষা ও প্রশিক্ষণের ভালো সুযোগ রয়েছে, যার মাধ্যমে কর্মদক্ষতা বাড়ানোর মাধ্যমে আপনি এ পেশায় আরও ভালো অবদান রাখতে পারবেন। তাই দক্ষ মিডওয়াইফ হিসেবে মা ও শিশুর সেবায় সক্রিয়ভাবে ভূমিকা রাখতে এই পেশায় গড়তে পারেন ক্যারিয়ার।

Leave a Reply

আপনার নাম ও ইমেইল ঠিকানা দেয়া আবশ্যক। তবে মতামতের সাথে ইমেইল দেখানো হবে না।