সনোলজিস্ট

ক্যারিয়ার কন্টেন্ট - ক্যারিয়ারকী (CareerKi)

একজন সনোলজিস্ট আল্ট্রাসাউন্ড টেকনোলজি ব্যবহার করে মাতৃগর্ভে ভ্রূণের বিকাশ পর্যবেক্ষণ ও রোগ নির্ণয়ের জন্য শরীরের বিভিন্ন অংশের আল্ট্রাসনোগ্রাফি করে থাকেন।

সাধারণ পদবী:  সনোলজিস্ট, সনোলজি কনসালট্যান্ট, সনোলজি/আল্ট্রাসাউন্ড স্পেশালিস্ট

বিভাগ:  স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা      

প্রতিষ্ঠানের ধরন: সরকারি-বেসরকারি-সামরিক হাসপাতাল/চিকিৎসা কেন্দ্র, ডায়াগনস্টিক সেন্টার

ক্যারিয়ারের ধরন: পার্ট টাইম, ফুল টাইম।

লেভেল: মিড

অভিজ্ঞতা সীমা: অধিকাংশ ক্ষেত্রেই সংশ্লিষ্ট পেশায় ২-৩ বছরের অভিজ্ঞতা চাওয়া হয় 

সম্ভাব্য বেতন সীমা:  সরকারি হাসপাতালে সনোলজিস্ট হিসেবে কাজের শুরুতে বেতন গ্রেড-৯ অনুযায়ী ৩২-৩৬ হাজার টাকা হয়ে থাকে বেসরকারি হাসপাতালে প্রতিষ্ঠানের মান, স্থান ও সনোলজিস্টদের দক্ষতা ভেদে বেতন সাধারণত ৩০-৮০ হাজার টাকা হয়ে থাকে।

সম্ভাব্য বয়স সীমা: সরকারি হাসপাতালে চাকুরির সর্বোচ্চ বয়সসীমা ৩০ বছর ( মুক্তিযোদ্ধার কোটাধারী সন্তান-পৌত্র-পৌত্রী ও প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের জন্য ৩২ বছর)বেসরকারি হাসপাতালে কর্মক্ষম হলে এবং দক্ষতা ও অভিজ্ঞতা থাকলে বয়স বিবেচ্য বিষয় নয়।

মূল স্কিল:  আল্ট্রাসাউন্ড টেকনোলজি নিয়ে জ্ঞান, প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি চালাবার দক্ষতা,  অ্যানাটমি, বিভিন্ন অঙ্গের আল্ট্রাসনোগ্রাফি করার দক্ষতা

বিশেষ স্কিল:  সময়ানুবর্তি, যত্নবান ও নির্ভুল, সূক্ষ পর্যবেক্ষণ , যোগযোগের দক্ষতা

বিশেষ সতর্কতাঃ অন্যান্য অনেক দেশে এমবিবিএস ডিগ্রিধারী ডাক্তারদের পাশাপাশি মেডিকেল  অ্যাসিস্ট্যান্টরাও আল্ট্রাসাউন্ড টেকনোলজিতে কোর্স করে এ পেশা চর্চার সুযোগ পান। বাংলাদেশে কারিগরি শিক্ষা বোর্ড অনুমোদিত হেলথ টেকনোলজি ইন্সটিটিউটে মেডিকেল অ্যাসিস্ট্যান্টরা আল্ট্রাসাউন্ডে কোর্স করবার সুযোগ পান। তবে বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অধীন এ সকল কোর্স কিছুটা বিতর্কিত এবং বাংলাদেশ চিকিৎসা ও দন্ত চিকিৎসা পরিষদ(BM&DC) আইন-২০১০ অনুযায়ী এমবিবিএস পাশ ডাক্তার ব্যতীত অন্যকেউ আল্ট্রাসনোগ্রাফি করতে পারবে না।

একজন সনোলজিস্ট কোন ধরনের প্রতিষ্ঠান বা শিল্পে কাজ করেন?

  •        সরকারি হাসপাতাল/চিকিৎসা কেন্দ্র
  •        বেসরকারি হাসপাতাল
  •        ক্লিনিক
  •        ডায়াগনস্টিক সেন্টার
  •        সামরিক হাসপাতাল

একজন সনোলজিস্ট কী ধরনের কাজ করেন?

  •        নিয়ম অনুযায়ী আল্ট্রাসনোগ্রাফি সিস্টেমের সকল কাজ পরিচালনা ও তদারকি করা
  •        আল্ট্রাসনোগ্রাফি ডিভাইস পরিচালনা করা
  •        রিপোর্ট লিখার পদ্ধতি প্রস্তুত করা
  •        বিভিন্ন বৈজ্ঞানিক পদ্ধতি অনুসরণ করে বার বার পরীক্ষার মাধ্যমে যন্ত্রের সমস্যা সনাক্ত করা
  •        রোগীর সাথে আল্ট্রাসনোগ্রাফির পদ্ধতি ও যে কোন ধরনের সমস্যার ব্যাপারে আলোচনা করা
  •        আল্ট্রাসনোগ্রাফিতে রোগীর সমস্যা অনুসন্ধানে কোন সীমাবদ্ধতা ধরা পরলে রিপোর্টে উল্লেখ করা
  •        রোগীর স্বাচ্ছন্দ্য ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করা
  •        আল্ট্রাসনোগ্রাফির মাধ্যমে রোগ নির্ণয়ের জন্য উপযুক্ত ও পরিষ্কার ছবি নির্বাচন করা

একজন সনোলজিস্টের শিক্ষাগত যোগ্যতা কী?

ছোট খাটো হাসপাতাল, ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারগুলোতে কাজের জন্য এমবিবিএস ডিগ্রির সাথে ন্যূনতম ডিএমইউ (ডিপ্লোমা ইন মেডিকেল আল্ট্রাসাউন্ড) কোর্স থাকতে হবেতবে সরকারি হাসপাতালে সনোগ্রাফি কনসালট্যান্ট বা মানসম্মত বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কাজ করতে চাইলে রেডিওলজি এন্ড ইমেজিং-এ এমডি/এম ফিল/এফসিপিএস বা অন্য কোন স্নাতকোত্তর ডিগ্রি থাকতে হবে   

একজন সনোলজিস্টের কী কী দক্ষতা ও জ্ঞান থাকতে হয়?

  •        অবশ্যই আল্ট্রাসনোগ্রাফি ডিভাইস চালনা ও রক্ষণাবেক্ষণে দক্ষ হতে হবে
  •        আল্ট্রাসনোগ্রাফি ডিভাইসে কোন সমস্যা হলে তা অনুধাবনের জন্য পর্যাপ্ত জ্ঞান থাকতে হবে
  •        রোগীর নিরাপত্তা বিধানের জন্য করণীয় সম্পর্কে জ্ঞান থাকতে হবে
  •        আল্ট্রাসনোগ্রাফি রিপোর্ট প্রস্তুত ও পর্যবেক্ষণ করার দক্ষতা থাকতে হবে
  •        আল্ট্রাসনোগ্রাফিক এরিয়া যেমন মস্তিষ্ক, বক্ষ, হৃদপিন্ড, উদর ও অন্যান্য অঙ্গপ্রত্যঙ্গ সম্পর্কে ধারণা থাকতে হবে
  •        একাধিক রোগী সামলাবার দক্ষতা থাকতে হবে
  •        দীর্ঘক্ষণ অক্লান্তভাবে কাজ করার দক্ষতা থাকতে হবে

কোথায় পড়াশোনা করবেন সনোলজিস্ট হতে চাইলে?

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে(BSMMU) রেডিওলজি এন্ড ইমেজিং টেকনোলজিতে এমডি ডিগ্রি দেওয়া হয়। বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অফ মেডিকেল সায়েন্স(BIMS), সেন্টার ফর মেডিকেল আল্ট্রাসাউন্ড এন্ড ডপলার(CMUD), বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অফ থাইরয়েড মেডিসিন এন্ড ইমেজিং রিসার্চ(MITMIR), বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অফ মেডিকেল ডায়াগনস্টিক আল্ট্রাসনোগ্রাম এন্ড রিসার্চ(BIMDUR) এবং স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ড অনুমোদিত অসংখ্য হেলথ টেকনোলজি ইন্সটিটিউটে আল্ট্রাসাউন্ড/আল্ট্রাসনোগ্রাফিতে ডিপ্লোমা কোর্স ও সার্টিফিকেট কোর্স করবার সুযোগ আছে।

একজন সনোলজিস্টের কাজের ক্ষেত্র ও সুযোগ কেমন?

বাংলাদেশে সনোলজিস্টদের কাজের সুযোগ অনেক সকল সরকারি মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, জেলা সদর হাসপাতালসহ অনেক উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সেও আল্ট্রাসনোগ্রাফি টেকনোলজি বিদ্যমান তবে সনোলজিস্টের অভাবে অনেক সরকারি হাসপাতালে আল্ট্রাসনোগ্রাফি সেবা বন্ধ রয়েছে সরকারি হাসপাতালে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনে বিসিএস স্বাস্থ্য ক্যাডার হিসেবে চাকুরির পাশাপাশি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের অধীনে বাংলাদেশ পরমাণু শক্তি কমিশনের ‘নিউক্লিয়ার মেডিকেল সার্ভিস’ এ সারাদেশে মোট ১৪ টি হাসপাতালের সেন্টার ফর নিউক্লিয়ার মেডিসিন এন্ড আল্ট্রাসাউন্ড এ সনোলজিস্টদের কাজের সুযোগ রয়েছে

সশস্ত্র বাহিনী দ্বারা পরিচালিত সম্মিলিত সামরিক হাসপাতাল(CMH) গুলোতে সনোলজিস্ট পদে কাজের সুযোগ রয়েছে। এছাড়া বেসরকারি হাসপাতাল, ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার গুলোতে সনোলজিস্টদের প্রচুর চাহিদা। ঢাকা শহরের বাইরে দক্ষ সনোলজিস্টের ব্যাপক সংকট বিধায় জেলা শহরের বেসরকারি হাসপাতাল ও বড় ডায়াগনস্টিক সেন্টার গুলোতে উচ্চ বেতনে সনোলজিস্ট নিয়োগ দেওয়া হয়। এছাড়া বিভিন্ন মেডিকেল কলেজে আল্ট্রাসনোগ্রাফি এবং ইমেজিং বিভাগে শিক্ষকতার সুযোগ রয়েছে

একজন সনোলজিস্টের মাসিক আয় কেমন?

সনোলজিস্ট হিসেবে কাজের শুরুতে একজন গ্রেড-৯ অনুযায়ী মাসিক ৩০-৩৬ হাজার টাকা বেতন পান। স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভের পর পদোন্নতি হলে গ্রেড-৭ অনুযায়ী বেতন ৫৫-৬৬ হাজারের মধ্যে হয়ে থাকে। সশস্ত্র বাহিনীর অধিনস্ত সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে সনোলজিস্টের মাসিক বেতন সর্বসাকুল্যে ৩৫ হাজার টাকা 

বেসরকারি হাসপাতাল ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার গুলোতে বেতন প্রতিষ্ঠানের আকার, স্থান ও সনোলজিস্ট এর দক্ষতা অনুযায়ী আলাদা হয়ে থাকে। ছোট মাপের ক্লিনিক বা ডায়াগনস্টিক সেন্টার গুলোতে প্রতি আল্ট্রাসনোগ্রাফিতে ১৫০-২০০ টাকা পাওয়া যায়কাজের প্রাপ্যতার ভিত্তিতে মাসে ২০-২৫ হাজার টাকা উপার্জন সম্ভব। এসব প্রতিষ্ঠানে পার্ট টাইম কাজের অনেক সুযোগ আছে। ঢাকা সহ অন্যান্য বড় শহরে সনোলজিস্টের সংখ্যা বেশি হওয়াতে বেতন কম হয়ে থাকেসাধারণত ২৫-৪০ হাজারের মধ্যে। তবে ছোট শহর গুলোতে সনোলজিস্টের প্রকট সংকটের কারণে বেতন অনেক বেশি হয় সাধারণত ৪০-৮০ হাজারের মধ্যে। তবে এসব স্থানে কাজের চাপ অনেক এবং চাহিদা অনুযায়ী সার্বক্ষণিক দায়িত্ব পালন করতে হয়। যেমন ইবনে সীনা ট্রাস্টের অধীনে রাঙ্গামাটির লঙ্গদুর রাবেতা হাসপাতালে আবাসিক স্বাস্থ্য অফিসারের (আল্ট্রাসনোগ্রাফিতে পারদর্শী)  মাসিক বেতন ৭০-৮০ হাজার টাকা

ক্যারিয়ার কেমন হতে পারে একজন সনোলজিস্টের?

বিসিএস স্বাস্থ্য ক্যাডার হিসেবে সরকারি হাসপাতালে মেডিকেল অফিসার হিসেবে যোগদানের কয়েক বছর পর সনোলজিস্ট মেডিকেল অফিসার হিসেবে রেডিওলজি এন্ড ইমেজিং বিভাগে কাজ করতে হয়।  রেডিওলজি এন্ড ইমেজিং এ স্নাতকোত্তর ডিগ্রি সম্পূর্ণ হলে মেডিকেল কলেজে সনোলজি কনসাল্টেন্ট/সহকারি অধ্যাপক হিসেবে পদোন্নতি হয়। সহকারী অধ্যাপক হিসেবে অন্তত ৫/৬ বছর দায়িত্ব পালন করলে দক্ষতার ভিত্তিতে সহযোগী অধ্যাপক হওয়া সম্ভব। সহযোগী অধ্যাপক হতে হলে অবশ্যই একাধিক গবেষণা পত্র থাকতে হবে। এর পর অধ্যাপক হিসেবে পদোন্নতি হলে অন্যান্য যোগ্যতা ও পদের প্রাপ্যতার ভিত্তিতে এ পেশায় ক্যারিয়ারের শীর্ষে  আল্ট্রাসাউন্ড এন্ড ইমেজিং বিভাগের প্রধান হওয়া সম্ভব। উচ্চতর ডিগ্রি ও কাজের অভিজ্ঞতা থাকলে সরকারি চাকুরির বাইরে সামরিক হাসপাতাল বা বড় মাপের বেসরকারি হাসপাতাল ও মেডিকেল কলেজগুলোতেও ভালো ক্যারিয়ার গড়ে তোলা সম্ভব। এছাড়া মূলধন থাকলে ব্যক্তিগত উদ্যোগে সনোগ্রাফি সেন্টার খোলাও সম্ভব।

 

Loading

Leave a Reply

আপনার নাম ও ইমেইল ঠিকানা দেয়া আবশ্যক। তবে মতামতের সাথে ইমেইল দেখানো হবে না।