সমাজকর্মী

সোশ্যাল ওয়ার্কার বা সমাজকর্মী: ক্যারিয়ার প্রোফাইল - ক্যারিয়ারকী (CareerKi)

সামাজিক উন্নয়নের বিভিন্ন ক্ষেত্রে কাজ করেন, এমন পেশাজীবীরা সাধারণত সমাজকর্মী হিসাবে পরিচিত। তবে “সমাজকর্মী” শব্দ দিয়ে সুস্পষ্টভাবে কাজ নির্ধারণ করা সম্ভব নয়। বরং কাজের ক্ষেত্রভেদে আপনার ক্যারিয়ার আলাদা হবে।

এক নজরে একজন সমাজকর্মী

সাধারণ পদবী: প্রজেক্টসাপেক্ষ
বিভাগ: সমাজকর্ম
প্রতিষ্ঠানের ধরন: সরকারি, বেসরকারি
ক্যারিয়ারের ধরন: চুক্তিভিত্তিক
লেভেল: এন্ট্রি, মিড
অভিজ্ঞতা সীমা: ১ – ৪ বছর
এন্ট্রি লেভেলে সম্ভাব্য বেতনসীমা: ৳৩০,০০০ – ৳৩৫,০০০
এন্ট্রি লেভেলে সম্ভাব্য বয়সসীমা: ২৩ – ২৮ বছর
মূল স্কিল: বিষয়ভিত্তিক জ্ঞান, মানসিক চাপ সামলানোর ক্ষমতা, ধৈর্য
বিশেষ স্কিল: বিশ্লেষণী ক্ষমতা, যোগাযোগের দক্ষতা, রিপোর্টিংয়ের দক্ষতা

একজন সমাজকর্মী কোথায় কাজ করেন?

  • বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা;
  • আন্তর্জাতিক উন্নয়ন সংস্থা;
  • উন্নয়ন গবেষণা প্রতিষ্ঠান;
  • নাগরিক অধিকার ও আইন বিষয়ক সংস্থা।

একজন সমাজকর্মী হিসাবে আপনাকে অধিকাংশ ক্ষেত্রে নির্দিষ্ট কোন ইস্যু নিয়ে কাজ করতে হবে। যেমন – আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা (IOM) শুধুমাত্র অভিবাসী ও শরণার্থীদের নিয়ে কাজ করে। অন্যদিকে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের মূল কাজ মানবাধিকার নিয়ে।

একজন সমাজকর্মী কী ধরনের কাজ করেন?

আপনি যদি একজন সমাজকর্মী হন, সেক্ষেত্রে আপনার কাজের ধরন হবে আপনার প্রতিষ্ঠানভিত্তিক। কয়েকটি উদাহরণ দেয়া ব্যাপারটি বোঝানো যাক।

আপনি যদি অভিবাসনভিত্তিক কোন সংস্থায় কাজ করেন সেক্ষেত্রে আপনার অভিবাসী আইন, অভিবাসীদের অধিকার আর অভিবাসীদের সুযোগ-সুবিধা ইত্যাদি নিয়ে কাজ করা লাগবে।

আপনি যদি শিশুদের নিয়ে কাজ করে এমন কোন সংস্থায় কাজ করেন, সেক্ষেত্রে আপনাকে শিশুদের অধিকার, শিশু আইন, সুবিধাবঞ্চিত শিশু ও তাদের পুনর্বাসন এবং কিশোর অপরাধ প্রশমন ও দমনসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে কাজ করতে হবে।

আপনি যদি উদ্বাস্তুদের নিয়ে কাজ করা সংস্থার সাথে যুক্ত হন, সেক্ষেত্রে আপনাকে আন্তর্জাতিক উদ্বাস্তু আইন ও নিয়মনীতি বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে কাজ করতে হবে।

একজন সমাজকর্মীকে এক ইস্যুর উপর সব ধরনের কাজ করা লাগে না। বরং সংস্থার বিভিন্ন কর্মীর মধ্যে কাজ ভাগ করে দেওয়া হয়। সাধারণত যে ধরনের কাজে সমাজকর্মী প্রয়োজন হয়, তার মধ্যে রয়েছে –

  • তথ্য সংগ্রহ ও গবেষণা;
  • প্রতিবেদন তৈরি;
  • বাজেট প্রণয়ন;
  • প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য মাঠ পর্যায় বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করা;
  • অধিকার আর আইন সংক্রান্ত কাজের ক্ষেত্রে সরকারি নীতিমালার উপর গঠনমূলক আলোচনা-সমালোচনা করা;
  • কাজের অগ্রগতির মূল্যায়ন।

একজন সমাজকর্মীর কী ধরনের যোগ্যতা থাকতে হয়?

যোগ্যতাঃ কাজের ক্ষেত্র সুবিশাল হলেও সমাজকর্মীর ক্ষেত্রে একটি ন্যূনতম যোগ্যতা নির্দিষ্ট করা আছে। আপনি যদি সমাজকর্মী হিসেবে কাজ করতে চান, সেক্ষেত্রে আপনাকে অবশ্যই ব্যাচেলর ডিগ্রিধারী হতে হবে। সোশাল ওয়ার্ক বা সমাজকর্ম বিষয়ে ব্যাচেলর ডিগ্রি আছে, এমন প্রার্থীরা সব ক্ষেত্রে প্রাধান্য পেয়ে থাকেন। এর কারণ হলো, অধিকার আদায়ে আন্দোলন, ত্রাণ সংগ্রহ ও বিতরণ ও পুনর্বাসন – এ ধরনের কাজে সমাজকর্ম নিয়ে পড়াশোনা করা লোকদের প্রাথমিক ধারণা অন্যদের চেয়ে ভালো থাকা স্বাভাবিক ও প্রত্যাশিত।

কিছু ক্ষেত্রে একটি নির্দিষ্ট বিষয়ে ব্যাচেলর বা মাস্টার্স ডিগ্রি না থাকলে নিয়োগ দেয়া হয় না। যেমন – পরিবেশভিত্তিক কোন সংস্থায় নিয়োগের ক্ষেত্রে পরিবেশবিজ্ঞান বা পরিবেশ ব্যবস্থাপনা বিষয়ে ডিগ্রি থাকা জরুরি। আবার ক্ষুদ্রঋণ প্রকল্প কিংবা সুবিধাবঞ্চিত মানুষদের উন্নয়ন ব্যবস্থাপনার জন্য অর্থনীতি বা উন্নয়ন অধ্যয়ন বিষয়ে ডিগ্রি আছে, এমন কাউকে নিয়োগ দেয়া হতে পারে।

অভিজ্ঞতাঃ সমাজকর্মী হিসেবে কাজ করতে চাইলে অভিজ্ঞতা বেশ গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। কিছু ক্ষেত্রে অভিজ্ঞতা না থাকলেও আপনাকে নিয়োগ দেওয়া হতে পারে অথবা ১ বছরের অভিজ্ঞতার হিসাবে নিয়োগ দেওয়া হয়। তবে বিষয়টি কাজ ও প্রতিষ্ঠানসাপেক্ষ।

বয়সসীমাঃ এক্ষেত্রে সাধারণত কোন বয়সসীমা উল্লেখ করা থাকে না। স্পর্শকাতর বা কষ্টসাধ্য কাজের ক্ষেত্রে বয়স ২৮ বছরের ঊর্ধ্বে এমন কাউকে নিয়োগ দিতে চায় কিছু প্রতিষ্ঠান।

লিঙ্গঃ বহু ক্ষেত্রে নারী অথবা পুরুষ প্রার্থীর কথা নির্দিষ্টভাবে উল্লেখ করা থাকতে পারে।

একজন সমাজকর্মীর কী ধরনের দক্ষতা ও জ্ঞান থাকতে হয়?

একজন দক্ষ সমাজকর্মী হিসাবে কাজ করতে হলে আপনার প্রথমত প্রয়োজন বিষয়ভিত্তিক জ্ঞান। যে ইস্যু নিয়ে কাজ করবেন, সে ইস্যু নিয়ে আপনার ভালো ধারণা থাকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এর বাইরে যে ধরনের দক্ষতা দরকার হবে, তার মধ্যে রয়েছে –

  • ধৈর্যের সাথে কঠোর পরিশ্রম করার মানসিকতা;
  • মানসিক চাপ সামলানোর দক্ষতা;
  • ইতিবাচক মনোভাব থাকা;
  • যেকোন পরিস্থিতিতে দ্রুত খাপ খাইয়ে নেবার ক্ষমতা;
  • বিভিন্ন স্তরের মানুষের সাথে যোগাযোগ করার দক্ষতা।

বর্তমানে সব প্রতিষ্ঠানে রিপোর্টিংয়ের কাজ থাকে বিধায় আপনাকে মাইক্রোসফট অফিস নিয়ে কাজ করা জানতে হবে। এছাড়া বাংলা ও ইংরেজিতে ভালো দক্ষতা থাকলে অগ্রাধিকার পাবেন।

সমাজকর্মী হবার জন্য কোথায় প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা নেবেন?

আপনি যে খাতের সমাজকর্মী হতে চান, সে খাতের উপর ন্যূনতম ব্যাচেলর ডিগ্রি থাকা প্রয়োজন। বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে নিচের বিষয়গুলোর উপর পড়াশোনা করতে পারেন –

  • সমাজকর্ম ও সমাজকল্যাণ
  • অর্থনীতি
  • আইন
  • শান্তি ও সংঘর্ষ
  • গণস্বাস্থ্য বা পাবলিক হেলথ
  • ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজ
  • জেন্ডার স্টাডিজ
  • পরিবেশবিজ্ঞান ও ব্যবস্থাপনা
  • দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা

একজন সমাজকর্মীর মাসিক আয় কেমন?

বিষয়টি কাজ ও প্রতিষ্ঠানসাপেক্ষ। সাধারণত একজন সমাজকর্মীর মাসিক আয় ৳৩০,০০০ – ৳৬০,০০০ পর্যন্ত হয়। অধিকাংশ ক্ষেত্রে সমাজকর্মী হিসেবে আপনাকে চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ দেয়া হবে।

৩-৫ বছরের অভিজ্ঞতা থাকলে মাসিক আয়ের পরিমাণ লক্ষাধিক হতে পারে।

ক্যারিয়ার কেমন হতে পারে একজন সমাজকর্মীর?

এখানে বিষয়টি প্রতিষ্ঠানসাপেক্ষ। সাধারণত সমাজকর্মীর কাজের ক্ষেত্র দুই ধরনের হয় – চুক্তিভিত্তিক ও স্থায়ী। নতুন উদ্ভূত সমস্যার ভিত্তিতে প্রজেক্ট তৈরি করা হয় বলে অধিকাংশ ক্ষেত্রেই স্থায়ী ভিত্তিতে সমাজকর্মী নিয়োগ দেওয়া হয় না। আবার রিসার্চ অফিসার বা প্রোগ্রাম অফিসার হিসেবে আপনাকে স্থায়ী ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হতে পারে কিছু প্রতিষ্ঠানে। প্রোগ্রাম অফিসার থেকে পদোন্নতির মাধ্যমে আপনি প্রোগ্রাম ডিরেক্টর হতে পারেন এক্ষেত্রে। প্রোগ্রাম ডিরেক্টর থেকে পদোন্নতির মাধ্যমে কিছু ক্ষেত্রে অ্যাডমিন কোঅর্ডিনেটর এবং চেয়ারম্যান পদে আপনাকে নিয়োগ দেওয়া হতে পারে। এছাড়া সমাজকর্মী হিসেবে গবেষক বা সহগবেষক হিসেবে আপনি বিভিন্ন সংস্থায় কাজ করতে পারেন।

Leave a Reply

আপনার নাম ও ইমেইল ঠিকানা দেয়া আবশ্যক। তবে মতামতের সাথে ইমেইল দেখানো হবে না।