ইনফরমেশন টেকনোলজিস্ট

ইনফরমেশন টেকনোলজিস্ট: ক্যারিয়ার প্রোফাইল - ক্যারিয়ারকী (CareerKi)

একজন ইনফরমেশন টেকনোলজিস্ট একটি প্রতিষ্ঠানের কম্পিউটার সিস্টেম স্থাপন ও এর রক্ষণাবেক্ষণ আর উন্নয়নের দায়িত্ব পালন করেন। প্রোগ্রামার না হয়েও আপনি এ পেশায় আসতে পারেন।

এক নজরে একজন ইনফরমেশন টেকনোলজিস্ট

সাধারণ পদবী: ইনফরমেশন টেকনোলজিস্ট
বিভাগ: তথ্যপ্রযুক্তি
প্রতিষ্ঠানের ধরন: সরকারি, বেসরকারি, প্রাইভেট ফার্ম/কোম্পানি, ফ্রিল্যান্সিং
ক্যারিয়ারের ধরন: পার্ট-টাইম, ফুল-টাইম
লেভেল: এন্ট্রি, মিড
এন্ট্রি লেভেলে অভিজ্ঞতা সীমা: ০ – ২ বছর
এন্ট্রি লেভেলে সম্ভাব্য আয়: ৳২০,০০০ – ৳৩০,০০০
এন্ট্রি লেভেলে সম্ভাব্য বয়সসীমা: ২৫ – ২৮ বছর
মূল স্কিল: কম্পিউটার সিস্টেম রক্ষণাবেক্ষণ সম্পর্কিত জ্ঞান, ডাটাবেজ ব্যবস্থাপনা, সাইবার নিরাপত্তা সম্পর্কে পরিষ্কার ধারণা
বিশেষ স্কিল: সমস্যা সমাধানের দক্ষতা, বিশ্লেষণী ক্ষমতা

একজন ইনফরমেশন টেকনোলজিস্ট কোথায় কাজ করেন?

  • সরকারি প্রতিষ্ঠানে বা প্রজেক্টে, যেমনঃ সরকারি ডিজিটাল আর্কাইভ বা ওয়েবসাইট ম্যানেজমেন্ট, মেইনটেন্যান্স ও ডাটা ম্যানেজমেন্ট খাতে
  • বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে, যেমনঃ এনজিওর আইটি বিভাগে
  • ব্যাংক ও আর্থিক সেবার প্রতিষ্ঠানে
  • আইটি সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানে
  • আউটসোর্সিং ফার্মে

একজন ইনফরমেশন টেকনোলজিস্টের কাজ কী?

  • প্রতিষ্ঠানে বিদ্যমান সফটওয়্যার সিস্টেম সচল রাখা
  • বিদ্যমান অ্যাপ্লিকেশন ও প্রজেক্টগুলোর উন্নয়ন ঘটানো
  • সিস্টেম প্ল্যান ও ডকুমেন্টেশন তৈরি করা ও রেকর্ড রাখা
  • প্রতিষ্ঠানের পুরো সিস্টেমের নিরাপত্তা নিয়মিত পরীক্ষা করা
  • আইটি দলের প্রোগ্রামার ও ইঞ্জিনিয়ারদের সাথে যোগাযোগ রাখা
  • প্রতিষ্ঠানের সিস্টেম ব্যবহারে কারো কোন সমস্যা হলে তা সমাধান করার উদ্যোগ নেয়া
  • আইটি ম্যানেজারকে প্রতিষ্ঠানের সার্বিক কম্পিউটার সিস্টেম সম্পর্কে অবহিত করা

একজন ইনফরমেশন টেকনোলজিস্টের কী ধরনের যোগ্যতা থাকতে হয়?

শিক্ষাগত যোগ্যতাঃ এ পদে কাজ করার জন্য ইনফরমেশন টেকনোলজি, কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং কিংবা কমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে স্নাতক ডিগ্রি থাকা প্রয়োজন।

বয়সঃ সাধারণত আপনার বয়স কমপক্ষে ২৫ বছর হতে হবে।

অভিজ্ঞতাঃ এ পেশায় সাধারণত ০ – ২ বছরের অভিজ্ঞতা চাওয়া হয়।

একজন ইনফরমেশন টেকনোলজিস্টের কী ধরনের দক্ষতা ও জ্ঞান থাকতে হয়?

  • কম্পিউটার সিস্টেম সম্পর্কিত ধারণা
  • ডাটাবেইজ ম্যানেজমেন্টের দক্ষতা
  • সাইবার নিরাপত্তা বিষয়ক জ্ঞান
  • প্রজেক্ট সংক্রান্ত হার্ডওয়্যার ও সফটওয়্যারের বিস্তারিত পরিকল্পনা তৈরি করার দক্ষতা
  • আইটি বিষয়ক রিপোর্ট তৈরির ধারণা
  • প্রজেক্টের সাথে জড়িত সদস্য ও ক্লায়েন্টদের সাথে দক্ষভাবে যোগাযোগ রক্ষা করতে পারা

কোথায় পড়বেন ইনফরমেশন টেকনোলজি নিয়ে?

দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে তথ্যপ্রযুক্তির উপর আন্ডারগ্র্যাজুয়েট ও পোস্টগ্র্যাজুয়েট ডিগ্রি অর্জনের সুযোগ রয়েছে আপনার জন্য। যেমনঃ

  • ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়
  • জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়
  • বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অফ প্রফেশনালস
  • ইউনিভার্সিটি অফ ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস
  • ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়
  • ন্ডিপেন্ডেন্ট বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ
  • স্টেট ইউনিভার্সিটি অফ বাংলাদেশ

এর বাইরে কিছু আইটি ফার্ম (যেমনঃ কাজী আইটি ) রয়েছে, যারা ৬-৯ মাসব্যাপী বুটক্যাম্প আয়োজন করে কর্মীদের প্রশিক্ষণ দেয় ও যোগ্য করে তোলে।

একজন ইনফরমেশন টেকনোলজিস্টের মাসিক আয় কেমন?

ইনফরমেশন টেকনোলজিস্ট হিসেবে কাজ শুরু করলে মাসে ৳২০,০০০ – ৳৪০,০০০ আয় করা সম্ভব।

ক্যারিয়ার কেমন হতে পারে একজন ইনফরমেশন টেকনোলজিস্টের?

ডাটাবেজ অ্যাডমিনিস্ট্রেটর বা আইটি সাপোর্ট স্পেশালিস্ট হিসাবে কাজ শুরু করতে হবে আপনাকে। ভালো কাজ দেখাতে পারলে ৪ – ৫ বছরের মধ্যে আইটি ম্যানেজার পদে নিয়োগ পেতে পারেন।

Leave a Reply

আপনার নাম ও ইমেইল ঠিকানা দেয়া আবশ্যক। তবে মতামতের সাথে ইমেইল দেখানো হবে না।