দমকল কর্মী

ক্যারিয়ার কন্টেন্ট - ক্যারিয়ারকী (CareerKi)

বাংলাদেশ ফায়ার সার্ভিস এন্ড সিভিল ডিফেন্স বাংলাদেশে সরকারের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অধীনস্থ একটি সেবাধর্মী প্রতিষ্ঠান। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অধীন এ প্রতিষ্ঠানটি ১৯৮২ সালে গতি, সেবা ও ত্যাগের মূলমন্ত্রে উজ্জীবিত হয়ে কার্যক্রম আরম্ভ করে। প্রথম সাড়া প্রদানকারী সংস্থা হিসেবে এ বিভাগের কর্মীরা অগ্নি নির্বাপণ, অগ্নি প্রতিরোধ, উদ্ধার, আহতদের প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান, মুমূর্ষু রোগীদের হাসপাতালে প্রেরণ ও দেশী-বিদেশী ভিআইপিদের অগ্নি নিরাপত্তা বিধান করে থাকে । উদ্ধার তৎপরতা পরিচালনাকারী সংস্থা হিসেবে এটি সব ধরনের প্রাকৃতিক ও মানবিক দুর্ঘটনায় উদ্ধারকার্যে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করে থাকে।

সাধারণ পদবী: দমকল কর্মী

বিভাগ:  বাংলাদেশ ফায়ার সার্ভিস এন্ড সিভিল ডিফেন্স (স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়)।

কর্মস্থলঃ বিভিন্ন জেলা।

ক্যারিয়ারের ধরন: ফুল টাইম

লেভেল: এন্ট্রি

অভিজ্ঞতা: পুর্ব অভিজ্ঞতার প্রয়োজন নেই। যোগদানের পর প্রশিক্ষণ সেল কার্যক্রমের আওতায় স্বেচ্ছাসেবক বৃদ্ধিকরণ প্রশিক্ষণ, সাইকো সোশ্যাল প্রশিক্ষণ, পেশাগত দক্ষতা বৃদ্ধিকরণ প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হয়।

বেতন সীমা: ৮৮০০-২১৩১০ টাকা।

বয়স সীমা: বিজ্ঞপ্তির বছরের ১লা জানুয়ারী পর্যন্ত ১৮-৩০ বছর।

অন্যান্য যোগ্যতা:৫’৪” উচ্চতা ও বুক ৩২” চওড়া। শারীরিক সুস্থতা।

শিক্ষাগত যোগ্যতা: বাংলাদেশের যে কোন স্বীকৃত স্কুল থেকে মাধ্যমিক বা তার সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ যে কেউ আবেদন করতে পারে।

একজন দমকল কর্মী কি ধরনের কাজ করেন?

একজন যোগ্য-দক্ষ অগ্নি নির্বাপণকারীর প্রধান দায়িত্ব জনসাধারণের জরুরী পরিস্থিতিতে সহায়তা করে। তারা জনগণের বিভিন্ন ধরনের আহ্বানে সাড়া দেয়, যেমন: গাড়ি দুর্ঘটনা, রাসায়নিক দুর্ঘটনা, বন্যাদূর্গতদের উদ্ধার , সাধারণ উদ্ধার এবং আগুন নির্বাপণ ইত্যা্দি। এছাড়া তাঁরা এই কাজগুলো করে থাকেন-

  • নিয়মিত আগুন নির্বাপণের দায়িত্ব পালন।
  • জরুরী ক্ষেত্রে জবাবদিহিতা (প্রধানত আগুন, কিন্তু চিকিৎসা সমস্যা ইত্যাদি ও হতে পারে) এবং সহায়তা প্রদান করা।
  • নিজস্ব সরঞ্জামের সাহায্যে আগুনের ক্ষয়ক্ষতি হ্রাস করা এবং সঠিক কার্যক্রমের মাধ্যমে এটি নিশ্চিত করা।
  • আগুন প্রতিরোধে স্থানীয় মানুষের মধ্যে জনসচেতনতামূলক শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা করা।
  • প্রশিক্ষণ, কর্মশালা, স্ব-শিক্ষায় অংশগ্রহণের মাধ্যমে আরো পেশাদারি জ্ঞান ও দক্ষতা অর্জন করা।
  • অগ্নি দপ্তরের দৈনন্দিন কাজের জন্য অন্যান্য জবাবদিহিমূলক রেকর্ড আপডেট রাখা।
  • নিরাপত্তা কর্মী নীতি অনুসরণ এবং রিপোর্টিং।
  • পুলিশ এবং অ্যাম্বুলেন্স সেবা কর্মীদের সঙ্গে কাজ করা।
  • শারীরিক এবং অ্যাকাডেমিক প্রশিক্ষণ আয়োজন করা।
  • অগ্নি নির্বাপক গাড়িসমূহ, সরঞ্জাম, হাইড্রেন্টস এবং জল সরবরাহ চেক এবং তত্ত্বাবধান করা।

একজন দমকল কর্মীর কি কি দক্ষতা ও জ্ঞান থাকতে হয়?

  • প্রাসঙ্গিক মেডিকেল সরঞ্জাম ব্যবহারের সামর্থ্য।
  • কম্পিউটার এবং সংশ্লিষ্ট সফ্টওয়্যার ব্যবহারের দক্ষতা।
  • সিপিআর এবং অন্যান্য জরুরি চিকিৎসা প্রদানের দক্ষতা।
  • ইউনিট ফায়ার কোড জ্ঞান থাকা।
  • অগ্নিনির্বাপক সম্পর্কিত রিপোর্টং, রেকর্ড রাখা, কম্পিউটার, এবং পেপারওয়ার্ক দক্ষতা।
  • ফায়ার-ট্রাক এবং অন্যান্য যানবাহন এবং অগ্নিনির্বাপক যন্ত্রপাতি পরিচালনার দক্ষতা।
  • পাবলিক ইউটিলিটি অবকাঠামো, যেমন গ্যাস, প্লাম্বিং এবং বৈদ্যুতিক লাইন, শিল্প জ্বালানি ট্যাংক এবং জ্বলন্ত রাসায়নিক এবং অন্যান্য সম্ভাব্য বিপজ্জনক পদার্থ সম্পর্কিত জ্ঞান।
  • বিভিন্ন ধরনের আগুনের জন্য নির্দিষ্ট পদ্ধতি সম্পর্কে আপ টু ডেট জ্ঞান থাকা – বন্য আগুন, শিল্প ও বাণিজ্যিক, যানবাহন চলাচল, বিমান এবং বিমানবন্দর, আবাসিক, বিস্ফোরক বা জ্বলন্ত বস্তু, এবং অন্যান্য।

একজন দমকল কর্মীর কাজে ক্ষেত্র ও সুযোগ কেমন?

আজকের গণমাধ্যম এবং প্রযুক্তির নতুন জগতে একজন দমকল কর্মী যে কোন দূর্যোগ মোকাবেলায় অন্যতম ভূমিকা পালন করে। যে কোন প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের সময় সবার আগে এগিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা অগ্রগণ্য।  একজন দমকল কর্মী দেশের বিভিন্ন জেলা, বিভাগের ইউনিটে কাজ করে থাকেন।

ক্যারিয়ার কেমন হতে পারে একজন দমকল কর্মীর?

বর্তমান বাংলাদেশে দমকলকর্মীর চাকরি গুরুত্বপূর্ণ এবং অন্যতম সেবামূলক কাজ হিসাবে গণ্য করা হচ্ছে। এই চাকরিতে দ্রুততর অগ্রগতি হতে পারে, অনেক জুনিয়র কর্মকর্তাকে দুই থেকে চার বছরের মধ্যে সিনিয়র কর্মকর্তাদের পদে উন্নীত করা হয়।

 

Loading

Leave a Reply

আপনার নাম ও ইমেইল ঠিকানা দেয়া আবশ্যক। তবে মতামতের সাথে ইমেইল দেখানো হবে না।