বিসিএস সমবায়: সহকারী নিবন্ধক

বিসিএস - সমবায় ক্যাডার: ক্যারিয়ার প্রোফাইল - ক্যারিয়ারকী (CareerKi)

বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস(BCS) এর সমবায় ক্যাডার একটি সাধারণ ক্যাডার পদ। সমবায় ক্যাডাররা মূলত সমবায় অধিদপ্তর ও বাংলাদেশ সমবায় একাডেমীতে কাজ করেন।

এক নজরে একজন সহকারী নিবন্ধক

সাধারণ পদবী: সহকারী নিবন্ধক
বিভাগ: বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস
প্রতিষ্ঠানের ধরন: সরকারি
ক্যারিয়ারের ধরন: ফুল টাইম
লেভেল: এন্ট্রি
অভিজ্ঞতা সীমা: প্রযোজ্য নয়
বেতনসীমা: জাতীয় বেতন স্কেলের নবম গ্রেড অনুযায়ী মূল বেতন ২২ হাজার টাকা। কর্মস্থল অনুযায়ী বাড়ি ভাড়া ও অন্যান্য ভাতা মিলিয়ে মাসিক ৩৫-৩৭ হাজার টাকা
সম্ভাব্য বয়সসীমা: বিসিএস সার্কুলার যে মাসে দেওয়া হবে সে মাসের প্রথম দিন একজন প্রার্থীর বয়স ২১-৩০ এর মধ্যে হতে হবে। তবে মুক্তিযোদ্ধা সনদধারী ব্যক্তিদের সন্তান ও পৌত্র-পৌত্রীর ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ বয়সসীমা ৩২ বছর
মূল স্কিল: সমবায় আইন, নীতিমালা, প্রশাসন ও কার্যক্রম সম্পর্কিত জ্ঞান
বিশেষ স্কিল: যোগাযোগের দক্ষতা, মাঠ পর্যায়ে তদারকির সক্ষমতা, বাজেট ও পরিকল্পনার দক্ষতা, আর্থিক সমস্যা নিষ্পত্তির দক্ষতা

একজন সহকারী নিবন্ধক কোথায় কাজ করেন?

পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগের অধিনস্ত সমবায় অধিদপ্তরের জেলা, বিভাগীয় ও সদর দপ্তরের পাশাপাশি বাংলাদেশ সমবায় একাডেমী ও আঞ্চলিক সমবায় ইন্সটিটিউটে কাজ করেন।

একজন সহকারী নিবন্ধক কী ধরনের কাজ করেন?

জেলা সমবায় অফিসে একজন সমবায় ক্যাডার সমবায় সমিতির নিবন্ধন প্রদান, বার্ষিক অডিট সম্পাদন, বিভিন্ন সরকারি আশ্রয়ন প্রকল্পে ঋণদান, সমবায় অধিদপ্তরকে শক্তিশালীকরণ প্রকল্পের আওতায় সমবায়ীগণের মধ্যে ক্ষুদ্রঋণ কার্যক্রম পরিচালনা, সমবায় সমিতিতে সমবায় বাজার স্থাপনসহ অন্যান্য বিভাগীয় কার্যক্রম পরিচালনা ও তদারকি করেন। সমবায় একাডেমী ও আঞ্চলিক সমবায় ইন্সটিটিউটে সমবায়ীগণকে বিভিন্ন ট্রেডের উপর প্রশিক্ষণ প্রদান করেন। এক কথায় সমবায়ীগণকে আর্থসামাজিক উন্নয়নে সরকারি আইন ও বিধির আলোকে স্বাবলম্বী করে গড়ে তোলাই একজন সমবায় ক্যাডারের প্রধান কাজ।

একজন সহকারী নিবন্ধকের কী ধরনের যোগ্যতা থাকতে হয়?

উচ্চমাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষা পাশের পর কোন স্বীকৃত প্রতিষ্ঠান থেকে ৪ বছর মেয়াদী যেকোন বিষয়ে ডিগ্রী থাকলেই বিসিএস অ্যাডমিন ক্যাডারের জন্য যোগ্য বিবেচিত হন। তবে শিক্ষাজীবনের যে কোন পর্যায়ে (মাধ্যমিক, উচ্চমাধ্যমিক, স্নাতক) একটির বেশি তৃতীয় বিভাগ থাকলে অযোগ্য বিবেচিত হবেন।

একজন সহকারী নিবন্ধকের কী ধরনের দক্ষতা ও জ্ঞান থাকতে হয়?

  • বাংলাদেশের সমবায় আইন ও ব্যবস্থা নিয়ে জ্ঞান রাখতে হবে
  • সমবায় অধিদপ্তরের নীতিমালা ও কার্যক্রম সম্পর্কে জ্ঞান রাখতে হবে
  • উপযুক্ত প্রশিক্ষণের মাধ্যমে সমবায় অধিদপ্তরের প্রসাশনিক ও অন্যান্য কাজে দক্ষতা অর্জন করতে হবে
  • উন্নত দেশে বিদ্যমান সমবায় ব্যবস্থা সম্পর্কে জ্ঞান রাখতে হবে
  • সমবায়ীগণের সাথে সর্বদা যোগাযোগ করে যে কোন সমস্যার সমাধান দেবার দক্ষতা রাখতে হবে
  • সমবায় সমিতির অর্থনৈতিক পরিকল্পনা সম্পর্কে ধারণা রাখতে হবে

একজন সহকারী নিবন্ধকের মাসিক আয় কেমন?

কর্মজীবনের শুরুতে একজন সহকারী নিবন্ধক গ্রেড ৯ অনুযায়ী ৩২-৩৭ হাজার টাকা বেতন পান। এ ক্যাডারে ক্যারিয়ারের শীর্ষে একজন সমবায় অধিদপ্তরের নিবন্ধক বা রেজিস্ট্রার গ্রেড-২ অনুযায়ী বেতন পান।

একজন সহকারী নিবন্ধকের ক্যারিয়ার কেমন হতে পারে?

ক্যারিয়ারের শুরুতে একজন সমবায় ক্যাডার সহকারী নিবন্ধক হিসেবে কাজ করেন। এরপর একে একে জেলা সমবায় অফিসার বা উপ-নিবন্ধক/ ডেপুটি রেজিস্ট্রার ( গ্রেড-৬), বিভাগীয় সমবায় অফিসে যুগ্ম নিবন্ধক/জয়েন্ট রেজিস্ট্রার ( গ্রেড-৫), অতিরিক্ত নিবন্ধক/এডিশনাল রেজিস্ট্রার ( গ্রেড-৪) ও ক্যারিয়ারের শীর্ষে সমবায় অধিদপ্তরের নিবন্ধক/রেজিস্ট্রার হন। এছাড়া একজন সমবায় ক্যাডার সরকারি আদেশে যে কোন উন্নয়ন প্রকল্প, দপ্তর, মন্ত্রণালয়ে কাজ করার এবং সচিব হবারও সুযোগ পান।

 

Leave a Reply

আপনার নাম ও ইমেইল ঠিকানা দেয়া আবশ্যক। তবে মতামতের সাথে ইমেইল দেখানো হবে না।